বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

মঙ্গলবার বেলা সোয়া একটায় অপসারণের কাজ শুরু হয়। এদিকে ক্ষতিপূরণ না দিয়ে ভবন অপসারণের প্রতিবাদে ক্ষতিগ্রস্ত ভবনমালিক ও প্রতিবেশীরা পাশের স্ট্যান্ড রোড প্রায় তিন ঘণ্টা অবরোধ করে রাখেন।

সিডিএর অথরাইজড কর্মকর্তা মোহাম্মদ হাসান প্রথম আলোকে বলেন, ‘ভবনগুলো হেলে পড়ার কারণে ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে পড়েছে। তাই সেগুলো বসবাসের অনুপযোগী ঘোষণা করে সাইনবোর্ড টানিয়ে দেওয়া হয়েছে। আর ভবনের ভার কমাতে অংশবিশেষ অপসারণ করা হয়েছে।’

চট্টগ্রাম নগরের মাদারবাড়ীর মাঝিরঘাট এলাকার গুলজার খালের পাশের দুটি ভবন, একটি মন্দির ও একটি কাঁচা ঘর হেলে পড়েছে। ভবন থেকে বাসিন্দাদের সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। স্থাপনাগুলো পার্বতীপাড়া এলাকার গুলজার খালের পাশে অবস্থিত।

গুলজার খালটির পাশের একটি তিনতলা ভবন, একটি দোতলা ভবন, একটি মন্দির ও একটি কাঁচা ঘর সোমবার রাতে হেলে পড়ে। হেলে পড়া ভবনে অন্তত ১০টি পরিবার থাকত। গতকাল রাতেই ভবন থেকে বাসিন্দাদের সরিয়ে নেওয়া হয়। তবে ভবনের বাসিন্দারা এখন মাথা গোঁজার ঠাঁই নিয়ে দুশ্চিন্তায় আছেন। এ নিয়ে তাঁরা আজ মঙ্গলবার বিক্ষোভ দেখিয়েছেন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন