বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

রায় ঘোষণার সময় আদালতে জাবেদ উপস্থিত ছিলেন। আর মিজান ভারতে গ্রেপ্তার হয়ে সেখানকার কারাগারে।

রায় ঘোষণাকে কেন্দ্র করে সকাল থেকে আদালত এলাকায় নিরাপত্তা জোরদার করা হয়। কড়া নিরাপত্তার মধ্য দিয়ে সকালে জাবেদকে চট্টগ্রাম কারাগার থেকে আদালতে আনা হয়। রায় ঘোষণার পর তাঁকে কারাগারে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

চট্টগ্রাম সন্ত্রাসবিরোধী ট্রাইব্যুনালের সরকারি কৌঁসুলি মনোরঞ্জন দাশ প্রথম আলোকে বলেন, আদালত রায়ে একজনকে ফাঁসির আদেশ দেন। আরেকজনকে দিয়েছেন যাবজ্জীবন কারাদণ্ড। মামলায় ৭৭ সাক্ষীর মধ্যে ৩২ জনের সাক্ষ্য নেওয়া হয়।

আদালত সূত্র জানায়, ২০০৫ সালের ২৯ নভেম্বর সকালে চট্টগ্রাম আদালত ভবনের মূল ফটকে পুলিশের তল্লাশিচৌকির সামনে বোমা হামলা চালান জেএমবির সদস্যরা। ঘটনাস্থলে নিহত হন পুলিশের কনস্টেবল রাজীব বড়ুয়া ও বিচারপ্রার্থী শাহাবুদ্দীন। আহত হন পুলিশের কনস্টেবল আবু রায়হান, সামসুল কবির, রফিকুল ইসলাম, আবদুল মজিদসহ ১০ জন।

বোমা হামলার এ ঘটনায় করা মামলায় পরের বছরের ১৮ মে আদালতে অভিযোগপত্র দেয় পুলিশের গোয়েন্দা শাখা (ডিবি)। এরপর অভিযোগ গঠনের মধ্য দিয়ে আসামিদের বিরুদ্ধে বিচার শুরু হয়।

আগের মামলায় ফাঁসি কার্যকর হওয়ায় এ মামলায় সিদ্দিকুর রহমান ওরফে বাংলা ভাইসহ তিন জঙ্গিকে অভিযোগ গঠন থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়।

মামলাটি প্রথমে চট্টগ্রামের প্রথম অতিরিক্ত মহানগর দায়রা জজ আদালতে বিচারাধীন ছিল। সেখান থেকে মামলাটি চট্টগ্রামের দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালে বদলি করা হয়। কিন্তু ১৩৫ কার্যদিবস শেষ হয়ে যাওয়ায় মামলাটি আবার প্রথম অতিরিক্ত মহানগর দায়রা জজ আদালতে ফেরত যায়। সেখান থেকে ২০১৮ সালে মামলাটি সন্ত্রাসবিরোধী ট্রাইব্যুনালে যায়।

সরকারি কৌঁসুলিরা জানান, ধার্য দিনে সাক্ষীরা ট্রাইব্যুনালে হাজির না হওয়ায় বিচারপ্রক্রিয়া বিলম্বিত হয়।

আদালত সূত্র জানায়, এ মামলার দুই আসামির মধ্যে বোমা মিজানকে ২০০৯ সালের ১৫ মে ঢাকার কাফরুলের তালতলা থেকে গ্রেপ্তার করে র‍্যাব। ২০১৪ সালের ২৩ ফেব্রুয়ারি ময়মনসিংহের ত্রিশালে প্রিজনভ্যানে হামলা চালিয়ে বোমা মিজানসহ জেএমবির তিন নেতাকে ছিনিয়ে নেন জঙ্গিরা। ২০১৮ সালের ৭ আগস্ট মিজান কলকাতায় গ্রেপ্তার হন।

বোমা হামলায় আহত পুলিশ কনস্টেবল রফিকুল ইসলাম রায় ঘোষণার পর তাঁর প্রতিক্রিয়ায় প্রথম আলোকে বলেন, জঙ্গিদের বিরুদ্ধে দেওয়া মামলার রায় যেন দ্রুত কার্যকর হয়।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন