বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

অনুষ্ঠানে জহিরুল আলম দোভাষ বলেন, বর্তমান সরকারের রূপকল্প ২০৪১–এর সঙ্গে মিল রেখে ‘চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন এলাকার মহাপরিকল্পনা (২০২০-২০৪১) প্রণয়ন’ শীর্ষক প্রকল্প গ্রহণ করা হয়েছে। এই প্রকল্পের আওতায় চট্টগ্রাম নগরের জন্য একটি যুগোপযোগী মহাপরিকল্পনা (স্ট্রাকচার প্ল্যান, আরবান এরিয়া প্ল্যান, অ্যাকশন এরিয়া প্ল্যান) প্রণয়ন করা হবে। সব সংস্থা ও সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের সহযোগিতায় এই মহাপরিকল্পনা করা হবে।

আগের মহাপরিকল্পনা ও বিশদ অঞ্চল পরিকল্পনায় (ড্যাপ) যেসব সূক্ষ্ম ভুলভ্রান্তি রয়েছে, তা নতুন মহাপরিকল্পনায় নিরসন করা হবে বলে সাংবাদিকদের জানান জহিরুল আলম দোভাষ। তিনি বলেন, এবারের মহাপরিকল্পনায় সর্বাধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার করা হবে। করা হবে ভূতাত্ত্বিক জরিপ। এর মাধ্যমে মাটির গুণাগুণ জানা যাবে। এই মহাপরিকল্পনায় ভূমির যৌক্তিক ব্যবহার নিশ্চিত করা হবে।

উদ্বোধন অনুষ্ঠানে আরও ছিলেন সিডিএর উপপ্রধান নগর পরিকল্পনাবিদ ও প্রকল্প পরিচালক মো. আবু ঈসা আনছারী। তিনি বলেন, ২০ বছর মেয়াদি এই প্রকল্প বাস্তবায়নে প্রায় ২৭ কোটি টাকা ব্যয় হবে। মহাপরিকল্পনা প্রণয়নে কারিগরি সহযোগিতা দেওয়ার জন্য একটি পরামর্শক প্রতিষ্ঠান নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। পরামর্শক প্রতিষ্ঠান আগামী দুই বছরের মধ্যে কার্যক্রম শেষ করবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন