বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

দলীয় সূত্রে জানা গেছে, গত মঙ্গলবার কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আবু তৈয়ব ও সাধারণ সম্পাদক লোকমান হোসেন লালমাই উপজেলা ছাত্রলীগের কমিটির অনুমোদন দেন। এতে বাকই উত্তর ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি শাহপরান সওদাগরকে সভাপতি এবং বাগমারা উত্তর ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সহসভাপতি আরিফুল ইসলামকে সাধারণ সম্পাদক করা হয়েছে। ওই কমিটিতে কার্যনির্বাহী সদস্যপদে আজমাইনের নাম রয়েছে। ওই শিশুর বাবা মো. কামাল হোসেন। তাঁদের গ্রামের বাড়ি উপজেলার বাগমারা দক্ষিণ ইউনিয়নের বাগমারা বাজারে হলেও বসবাস করেন কুমিল্লা নগরের রানীরবাজার এলাকায়।

এ ঘটনা নিয়ে ফেসবুকে কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা ছাত্রলীগের সহসভাপতি জাহিদুল ইসলাম চৌধুরী পোস্ট দেন। এতে তিনি উল্লেখ করেন, চতুর্থ শ্রেণির শিক্ষার্থী কুমিল্লার লালমাই উপজেলা ছাত্রলীগের কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য।

আজমাইনের বাবা মো. কামাল হোসেন দাবি করেন, ‘আমার এক ভাতিজা আবদুল্লাহ নূরের নাম কমিটিতে থাকার কথা। আবদুল্লাহ কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পদার্থবিজ্ঞানে এমএসসি করেছে। হয়তো ভুলে আমার ছেলের নাম গেছে।’ পরক্ষণে তিনি বলেন, ‘জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ১০ বছর বয়সে ছাত্রলীগের রাজনীতি শুরু করেন। আমার ছেলের বয়স ১২ বছর। বয়স নিয়ে কোনো সমস্যা হবে না।’

জানতে চাইলে কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আবু তৈয়ব বলেন, ‘কমিটির তালিকা যেভাবে এসেছে, তাতে স্বাক্ষর করেছি আমরা। ঘোষণা ও অনুমোদনের পর বিষয়টি বুধবার জানতে পেরেছি। তালিকা থেকে চতুর্থ শ্রেণির ওই শিক্ষার্থীকে বাদ দেওয়া হয়েছে। যাঁরা তার নাম অন্তর্ভুক্ত করেছেন, তাঁদের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন