বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

ওই আট ছাত্রসংগঠন হলো রাবি শাখা ছাত্রলীগ, জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল, বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়ন, বাংলাদেশ ছাত্র অধিকার পরিষদ, সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্ট, নাগরিক ছাত্র ঐক্য, বিপ্লবী ছাত্র মৈত্রী ও বাংলাদেশ ছাত্র ফেডারেশন।

স্মারকলিপিতে বলা হয়, বিশ্ববিদ্যালয়ের ’৭৩–এর অধ্যাদেশ অনুযায়ী সিনেটে নির্বাচিত ছাত্র প্রতিনিধি থাকার কথা উল্লেখ থাকলেও বাংলাদেশের অন্যতম বৃহৎ একটি উচ্চশিক্ষার প্রতিষ্ঠান রাজশাহী বিশ্ববিশ্বদ্যালয়ে তিন দশক ধরে বন্ধ রয়েছে কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (রাকসু)–এর প্রতিনিধি নির্বাচন। নির্বাচিত ছাত্র প্রতিনিধি ছাড়া সিনেট ও সিন্ডিকেটের কার্যক্রম কোনোভাবেই আইনসম্মত বা বৈধ হতে পারে না। কয়েক বছর ধরে রাকসু নির্বাচনের দাবিতে ধারাবাহিক কর্মসূচি পালন করা হচ্ছে। শিক্ষার্থীদের দাবির পরিপ্রেক্ষিতে আগের প্রশাসন ‘রাকসু সংলাপ কমিটি’ গঠন করে। সেই সংলাপ কমিটি ছাত্রসংগঠনগুলোর সঙ্গে সংলাপ সম্পন্ন করলেও নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করতে ব্যর্থ হয়।

স্মারকলিপিতে আরও বলা হয়, দীর্ঘদিন ধরে রাকসু নির্বাচন বন্ধ থাকায় প্রশাসনের স্বেচ্ছাচারিতা, জবাবদিহির অভাব এবং নানান অনিয়ম ও দুর্নীতির মতো কলঙ্কজনক ঘটনা দেশ-বিদেশে বিশ্ববিদ্যালয়ের সম্মান ও মর্যাদা ক্ষুণ্ন করে চলেছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের সম্মান রক্ষা করতে এবং সৎ, দক্ষ ও যোগ্য নেতৃত্ব ও সুনাগরিক তৈরি করতে ছাত্র সংসদের কোনো বিকল্প নেই। তাই রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের সম্মান ও মর্যাদা ফিরিয়ে আনতে নিয়মতান্ত্রিক পদ্ধতিতে অবিলম্বে রাকসু নির্বাচনের মাধ্যমে সিনেটে ছাত্র প্রতিনিধি নিশ্চিত করে পূর্ণাঙ্গভাবে সিনেট কার্যকরের উদ্যোগ গ্রহণে জোরালো দাবি জানানো হচ্ছে।

স্মারকলিপিতে বলা হয়, রাকসুর নাম ব্যবহার করে ছাত্র সংসদটির তহবিলের টাকা খরচ করে বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী এবং মহান স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে ক্রীড়া উৎসব-২০২১ এর আয়োজন করা হয়। নির্বাচিত ছাত্র প্রতিনিধির মতামত ছাড়াই রাকসুর তহবিল ব্যবহার করা সম্পূর্ণ অনৈতিক ও অগণতান্ত্রিক। বিষয়টির সুস্পষ্ট ব্যাখ্যা দিতে হবে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে। একই সঙ্গে নির্বাচন না হওয়া পর্যন্ত রাকসুর তহবিল ব্যবহার বন্ধ রাখতে হবে।

স্মারকলিপি দেওয়ার সময় রাকসু আন্দোলন মঞ্চের সমন্বয়ক আবদুল মজিদ, ছাত্র ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক মহব্বত হোসেন, ছাত্র অধিকার পরিষদের সাংগঠনিক সম্পাদক আমান উল্লাহ খান, নাগরিক ছাত্র ঐক্যের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ হোসেন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। পরে স্মারকলিপির অনুলিপি সহ-উপাচার্য, রেজিস্ট্রার, ছাত্র উপদেষ্টা ও প্রক্টরের দপ্তরে দেওয়া হয়।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন