তিনি প্রথম আলোকে বলেন, ‘এবার আম রপ্তানি হয়েছে গত বছরের চেয়ে কম। আমরা প্রধানত রপ্তানিকারক প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে বিদেশে আম পাঠিয়ে থাকি। কিন্তু এ বছর আমাদের কাছ থেকে বেশি আম কিনছে না প্রতিষ্ঠানগুলো।’

শিবগঞ্জ ম্যাঙ্গো প্রডিউসার কো-অপারেটিভ সোসাইটি লিমিডেটের সাধারণ সম্পাদক শামীম খানও যুক্তরাজ্যে আম পাঠিয়েছেন। তিনি বলেন, ‘এ বছর ইংল্যান্ডে আম্রপালি ও ক্ষীরসাপাতি আম পাঠিয়েছি। আমাদের আম ফ্রুট ব্যাগিং করা ও সম্পূর্ণ কেমিক্যালমুক্ত।’

জানতে চাইলে শিবগঞ্জ উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা শরিফুল ইসলাম বলেন, ‘এ বছর শিবগঞ্জ উপজেলা থেকে ৭ জুলাই পর্যন্ত ৩১ মেট্রিক টন আম বিদেশে পাঠানো হয়েছে। নতুন করে আমাদের আমের বাজারে যুক্ত হয়েছে রাশিয়া ও হংকং। পরে রপ্তানির পরিমাণ আরও বাড়তে পারে।’

গত বছর ৫১ মেট্রিক টন আম রপ্তানি করা হয়েছিল জানিয়ে শরিফুল ইসলাম বলেন, এবার এখানে আমের দাম বেশি। তাই রপ্তানির পরিমাণ কম বলে ধারণা করা হচ্ছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন