বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

এ বিষয়ে জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মোতাওয়ক্কিল রহমান বলেন, সকাল ৯টার দিকে অভিযোগ শুনে তিনি ওই ইউপির আলতানূর হাফিজিয়া মাদ্রাসা কেন্দ্রে গিয়ে নৌকার কোনো এজেন্ট দেখতে পাননি। সেখানকার প্রিসাইডিং কর্মকর্তা জানান, নৌকার কোনো এজেন্টই দেওয়া হয়নি তাঁর কেন্দ্রে। ফোনে নৌকার প্রার্থীকে এজেন্ট পাঠানোর কথা বলা হলে তিনি বলেন, এখন আর এজেন্ট পাবেন কোথায়? রামচন্দ্রপুর হাট সরকারি প্রাথমিক কেন্দ্র ও কৃষ্ণ গোবিন্দপুর বালিকা উচ্চবিদ্যালয় কেন্দ্রে গিয়েও নৌকার প্রার্থীর কোনো এজেন্ট দেখতে পাওয়া যায়নি।

স্থানীয় ব্যক্তিরা বলেন, স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী রহমত আলী বিএনপি ও হাবিবুর রহমান জামায়াতে ইসলামীর রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত।

নৌকার প্রার্থীর অভিযোগের বিষয়ে চেয়ারম্যান প্রার্থী হাবিবুর রহমান বলেন, সরকারি দলের প্রার্থীর এমন অভিযোগ ঠিক নয়। তাঁর এ কথা কেউ বিশ্বাস করবে না। ভোট সুষ্ঠু, শান্তিপূর্ণ ও নিরপেক্ষভাবে অনুষ্ঠিত হচ্ছে। তবে রহমত আলীর সঙ্গে মুঠোফোনে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলে তিনি ফোন ধরেননি।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন