বিজ্ঞাপন

আমবিক্রেতা সুকুমার প্রামাণিক বলেন, বাইরের বাগানগুলো থেকে আম এসেছে মাত্র ছয় থেকে সাত ভ্যান। অথচ এ বাজারে আমভর্তি শতাধিক ভ্যান আসার কথা। বাজারে আমের আমদানি কম বলে গোপালভোগ আম দুই হাজার টাকা মণ দরে বিক্রি করতে পেরেছেন তিনি।

সকাল নয়টার দিকে সদর হাসপাতালে গিয়ে দেখা যায়, মানুষের আনাগোনা কম, খাঁ খাঁ করছিল হাসপাতাল চত্বর। এদিকে গতকাল মঙ্গলবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে সিভিল সার্জনের কার্যালয় থেকে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী, ২১২ জনের নমুনা পরীক্ষায় ১৩১ জনের করোনা সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে। সংক্রমণের হার ৬১ দশমিক ৭৯।

default-image

জেলা সিভিল সার্জন জাহিদ নজরুল চৌধুরী প্রথম আলোকে বলেন, সংক্রমণের এ হার উদ্বেগজনক। কঠোরভাবে লকডাউন কার্যকর করা না গেলে সংক্রমণের হার কমবে না। এ দুঃসময়ে জেলাবাসীকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার কোনো বিকল্প নেই।

অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট (এডিএম) লিয়াকত আলী শেখ বলেন, জেলা প্রশাসক, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) ও তিনি রাস্তায় নেমেছেন। ভ্রাম্যমাণ আদালতের আটটি দল জেলার বিভিন্ন স্থানে কাজ করছে। কঠোরভাবে লকডাউন বাস্তবায়নের চেষ্টা চলছে।

আজ সকাল সাড়ে ১০টার দিকে পৌরসভা এলাকায় ডিবি পুলিশকে মাইক্রোবাসে করে টহল দিতে দেখা যায়। এ সময় পোল্লাডাঙ্গা এলাকায় মোটরসাইকেল, রিকশা, অটোরিকশার চাকা ফুটো করে ডিবি পুলিশ। রাস্তার পাশে থাকা বন্ধ খাবারের দোকানগুলোর চুলা ভেঙে দেওয়া হয়েছে।

লকডাউনের ১১ দফা নির্দেশনা কঠোরভাবে বাস্তবায়নের চেষ্টা চলছে বলে জানান চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোজাফফর হোসেন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন