বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

আদালত সূত্রে জানা গেছে, ২০১৩ সালের ২০ জুলাই শিবগঞ্জের দুর্লভপুর ইউনিয়নের পারকালুপুর গ্রামের মমিনুল ইসলামের বাড়িতে টয়লেট নির্মাণকে কেন্দ্র করে প্রতিবেশী সুফিয়ানের সঙ্গে বাগ্‌বিতণ্ডা হয়। এর একপর্যায়ে মো. সুফিয়ান হাঁসুয়া দিয়ে মমিনুল ইসলামের গলায় আঘাত করেন। গুরুতর অবস্থায় উদ্ধার করে মমিনুল ইসলামকে হাসপাতালে নেওয়ার পথে তিনি মারা যান।

রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী আঞ্জুমান আরা জানান, এ ঘটনায় নিহত ব্যক্তির স্ত্রী মোসা. সীমা বেগম বাদী হয়ে শিবগঞ্জ থানায় সুফিয়ানকে আসামি করে হত্যা মামলা করেন। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা শিবগঞ্জ থানার উপপরিদর্শক (এসআই) বানী ইসরাইল ওই বছরের ৩০ সেপ্টেম্বর সুফিয়ানকে অভিযুক্ত করে আদালতে অভিযোগপত্র জমা দেন। তবে হত্যার ঘটনার পর থেকেই সুফিয়ান পলাতক। আজ তাঁর অনুপস্থিতিতেই আদালত এ রায় দিয়েছেন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন