বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

সাদেকুল্লাহর অভিযোগ, দায়িত্ব পরিবর্তনের জন্য সিটি করপোরেশনের মেয়র ও দায়িত্বশীল প্রকৌশলীর সঙ্গে কথা বলার পর মেয়র দায়িত্ব পরিবর্তনের আশ্বাসও দিয়েছিলেন। এ জন্য আপাতত কাজ চালিয়ে যেতে বলেছিলেন মেয়র, কিন্তু সংশ্লিষ্ট প্রকৌশলী বলেছেন অন্য দায়িত্ব দেওয়া সম্ভব নয়।

এদিকে সিটি করপোরেশনের প্রধান প্রকৌশলী রফিকুল ইসলাম বলেছেন, সাদেকুল্লাহর চাকরি ছেড়ে দেওয়ার বিষয়টি তাঁর জানা নেই। তবে যান্ত্রিক শাখার তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী সুদীপ বসাক প্রথম আলোর কাছে দাবি করেন, সাদেকুল্লাহকে শিক্ষাগত যোগ্যতা অনুযায়ী চাকরি দেওয়া হয়েছে। তাঁকে স্লিপ লেখার কাজই দেওয়া হয়। গ্যাস ভরে দেওয়ার দায়িত্বে থাকা কর্মী কোনো কাজে বাইরে গেলে মাঝেমধ্যে সাদেকুল্লাহকে ওই দায়িত্ব পালন করতে বলা হয়।

প্রকৌশলী সুদীপ বসাক আরও বলেন, সাদেকুল্লাহ চাকরি ছেড়ে দেননি। সামনে তাঁর উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষা। এ জন্য আপাতত আসতে পারবেন না বলে জানিয়েছেন।
গত ২৫ আগস্ট টানা বৃষ্টিতে সৃষ্ট জলাবদ্ধতায় নগরীর মুরাদপুরে চশমা খালে তলিয়ে যান সবজি বিক্রেতা ছালেহ আহমেদ (৫০)। তাঁকে উদ্ধারে কয়েক দফা চেষ্টা করা হলেও এখন পর্যন্ত খুঁজে পাওয়া যায়নি। এই ঘটনার পর সিটি করপোরেশনের মেয়র মো. রেজাউল করিম চৌধুরী নিখোঁজ ছালেহ আহমেদের পরিবারের সঙ্গে দেখা করে তাঁর ছেলেকে চাকরি দেওয়ার আশ্বাস দেন। এরপর গত ১২ অক্টোবর সাদেকুল্লাহের হাতে নিয়োগপত্র তুলে দেন মেয়র।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন