বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

প্রেস ব্রিফিংয়ে রফিকুল হাসান গনি বলেন, গ্রেপ্তার মেহেরুল ইসলাম সরকারের একটি বাহিনীর চাকরিচ্যুত সদস্য। কামরুল ইসলাম তথ্যপ্রযুক্তি ও কম্পিউটারে দক্ষ। দুজন দীর্ঘদিন ধরে চাকরিপ্রত্যাশী তরুণ-তরুণীর মুঠোফোন নম্বর সংগ্রহ করে বিভিন্ন বাহিনী বা সংস্থার ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা পরিচয়ে ফোন করতেন। একপর্যায়ে সেই দপ্তরে চাকরি দেওয়ার নাম করে ভুয়া নিয়োগের এসএমএস পাঠাতেন। এরপর নিয়োগপত্র প্রদানের নামে চাকরিপ্রত্যাশীদের কাছ থেকে মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে মোটা অঙ্কের টাকা হাতিয়ে নিতেন। এভাবে তাঁরা এ পর্যন্ত প্রায় ৯০ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন।

র‍্যাব জানিয়েছে, প্রতারিত ব্যক্তিদের অভিযোগ পেয়ে জড়িত ব্যক্তিদের শনাক্ত ও গ্রেপ্তারে মাঠে নামে র‍্যাব। দুজনকে প্রতারণার মামলায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে দুপচাঁচিয়া থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন