default-image

কুমিল্লার চান্দিনা পৌরসভার মেয়র পদপ্রার্থী বাছাইকে কেন্দ্র করে উপজেলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত বর্ধিত সভায় যাওয়ার পথে দুপক্ষের সংঘর্ষে অন্তত চারজন আহত হয়েছেন। বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে চান্দিনা থানা কমপ্লেক্সের সামনে এ ঘটনা ঘটে।

দলীয় মেয়র পদপ্রত্যাশী উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য মো. শওকত হোসেন ভূঁইয়া ও বর্তমান মেয়র পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মফিজুল ইসলামের অনুসারীদের মধ্যে ওই সংঘর্ষ হয়। মেয়র পদের তিনজন সম্ভাব্য মেয়র প্রার্থীর মধ্যে এ দুই নেতাকে রেখেছে চান্দিনা উপজেলা আওয়ামী লীগ।

আহত ব্যক্তিরা হলেন চান্দিনা পৌর যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক জাকির হোসেন (৪০), যুবলীগ নেতা মো. শাহিন (৩৫), ছাত্রলীগের কর্মী মো. রাসেল (২২) ও ৩ নম্বর ওয়ার্ড ছাত্রলীগ ক্রীড়া সম্পাদক সাইফুল ইসলাম (১৮)।

দল মেয়র পদে তিনজন সম্ভাব্য মেয়র প্রার্থীর নাম চূড়ান্ত করেছে। তাঁরা হলেন বর্তমান মেয়র মফিজুল ইসলাম, মো. শওকত হোসেন ভূঁইয়া ও পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি আবদুল জলিল।

দলীয় সূত্রে জানা গেছে, আগামী ১৬ জানুয়ারি এ পৌরসভায় ইভিএম পদ্ধতিতে নির্বাচন হবে। নির্বাচন সামনে রেখে আজ দুপুরে চান্দিনা মহিলা কলেজ মিলনায়তনে উপজেলা আওয়ামী লীগের এক বর্ধিত সভা ছিল। বেলা সাড়ে ১১টায় থানাসংলগ্ন এলাকায় শওকত হোসেন ভূঁইয়ার অনুসারী উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক ও চান্দিনা উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান জহিরুল ইসলাম যুবলীগ ও ছাত্রলীগ নেতা-কর্মীদের নিয়ে মিছিল করছিলেন। এ সময় বর্তমান পৌর মেয়র মফিজুল ইসলামের অনুসারীরা মোটরসাইকেল নিয়ে একই এলাকা দিয়ে শোডাউন করে যাচ্ছিলেন। তখন দুই পক্ষের মধ্যে ইটপাটকেল নিক্ষেপ ও লাঠিসোঁটা নিয়ে হামলার ঘটনা ঘটে। এতে চারজন আহত হন।

বিজ্ঞাপন

উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক ও উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান জহিরুল ইসলাম মুন্সী দাবি করেন, ‘পৌর মেয়র প্রার্থী ও বর্তমান মেয়র মো. মফিজুল ইসলামের অনুসারীরা আমার নেতা-কর্মীদের ওপর হামলা চালান।’

অভিযোগ অস্বীকার করে পৌর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও মেয়র মো. মফিজুল ইসলাম বলেন, ‘বর্ধিত সভায় যোগ দিতে আমার নেতা-কর্মীরা মোটরসাইকেলযোগে সভাস্থলে যাচ্ছিলেন। এ সময় থানাসংলগ্ন এলাকায় পৌঁছালে যুবলীগ ও ছাত্রলীগ নেতা-কর্মীরা পেছন দিকে থেকে অতর্কিত হামলা চালায়।’
চান্দিনা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শামসউদ্দীন মোহাম্মদ ইলিয়াছ বলেন, পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে এনেছে। এ ঘটনায় থানায় কোনো মামলা হয়নি। আহতদের হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

জানতে চাইলে চান্দিনা উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্পাদক মহিউদ্দিন আহমেদ আলম বলেন, ‘সভার বাইরে কী হয়েছে আমরা জানি না। দল মেয়র পদে তিনজন সম্ভাব্য মেয়র প্রার্থীর নাম চূড়ান্ত করেছে। তাঁরা হলেন বর্তমান মেয়র মফিজুল ইসলাম, মো. শওকত হোসেন ভূঁইয়া ও পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি আবদুল জলিল। কেন্দ্র যাঁকে প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন দেবে, তিনিই দলীয় প্রার্থী।’

মন্তব্য করুন