default-image

দুই রকম বক্তব্যের পর রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ স্বীকার করেছে, চাবি হারিয়ে যাওয়ার কারণে সিরাজগঞ্জ এক্সপ্রেস ট্রেন আজ সোমবার ৩ ঘণ্টা দেরিতে ছাড়া হয়েছে। এদিকে ঘটনা তদন্তে ৪ সদস্যের কমিটি গঠন করেছে পাকশী রেলওয়ে বিভাগ।

আজ সিরাজগঞ্জ বাজার রেলস্টেশন থেকে সকাল ছয়টার দিকে ট্রেনটি ছেড়ে যাওয়ার কথা ছিল। তিন ঘণ্টা পর সকাল ৯টার দিকে ট্রেনটি ছেড়ে যায়। এ কারণে চরম ভোগান্তিতে পড়েন যাত্রীরা।

মুঠোফোনে পৌর শহরের হোসেনপুর মহল্লার আবুল হাসেম বলেছিলেন, ‘আমি ডাক্তার দেখাতে ঢাকায় যাচ্ছি। ট্রেনের এমন অবস্থার কারণে আমি সঠিক সময়ে সেখানে গিয়ে পৌঁছাতে পারব না। এটি আমাদের চরম ভোগান্তি। আমরা এর তদন্ত চাই, বিচার চাই।’ বাজার স্টেশনের দোকানি মামুন হোসেন বলেন, অনেক যাত্রী ঢাকায় গিয়ে তাঁদের অফিস করে থাকেন। তাঁরা সেটি করতে পারবেন না।

বিজ্ঞাপন

সিরাজগঞ্জ বাজার রেলস্টেশনের বুকিং সহকারী জিয়াউর রহমান দাবি করেছিলেন, প্রতিদিন সিরাজগঞ্জ এক্সপ্রেস ট্রেনটি রাতে এসে এই স্টেশনেই থাকে। সকাল ৬টায় ট্রেনটি ঢাকার উদ্দেশে ছেড়ে যায়। কিন্তু আজ সকালে চালক ইঞ্জিন চালাতে গিয়ে দেখেন সেটি বিকল হয়ে পড়েছে। যে কারণে বঙ্গবন্ধু সেতু পূর্ব ইব্রাহীমাবাদ রেলস্টেশনে থেমে থাকা মালবাহী ট্রেন থেকে ইঞ্জিন এনে সকাল ৯টার দিকে ট্রেনটি জামতৈল স্টেশনে টেনে নিয়ে যাওয়া হয়। এরপর ট্রেনের ইঞ্জিনটি সচল করালে সেটি ৯টা ৪৫মিনিটে ঢাকার উদ্দেশে যাত্রা করে।

আর সিরাজগঞ্জের রায়পুর স্টেশনের স্টেশনমাস্টার গোলাম হোসেন বলেছিলেন, ট্রেনের রিভালস হ্যান্ডেল (চাবি) হারিয়ে যাওয়ার কারণে ট্রেন চলাচল বন্ধ থাকে। এরপর বিকল্প ব্যবস্থায় অন্য একটি ইঞ্জিনের সাহায্যে ট্রেনটি ঢাকার উদ্দেশে ছেড়ে যায়। তবে চাবি কীভাবে হারিয়ে গেল, এ বিষয়ে বিস্তারিত তিনি বলতে পারেননি।

পাকশী বিভাগীয় রেলওয়ে ব্যবস্থাপক (ভারপ্রাপ্ত) শাওন কবির বলেন, চাবি খোয়া যাওয়ার ঘটনায় সহকারী পরিবহন কর্মকর্তা (পাকশী) আবদুস সোবহানকে আহ্বায়ক করে চার সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। তিন কার্যদিবসের মধ্যে প্রতিবেদন দিতে বলা হয়েছে।

ট্রেনের পরিচালক আফজাল হোসেন প্রথম আলোকে বলেন, ট্রেনটির চালক রবিউল ইসলাম আজ সকালে যথানিয়মে ট্রেনের ইঞ্জিন চালাতে গিয়ে দেখেন চাবিটা নেই। পরে চাঁপাইনবাবগঞ্জ-ঢাকাগামী বনলতা এক্সপ্রেসে করে বিকল্প চাবি এনে ঢাকার উদ্দেশে ছেড়ে যায় ট্রেনটি। এ বিষয়ে তদন্ত চলছে। তদন্ত শেষে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন