default-image

সাতক্ষীরায় মাদক মামলায় ছয় মাসের কারাদণ্ডপ্রাপ্ত আসামি ইমাম হোসেন কারাগার নয়, থাকবেন বাড়িতে। চারটি শর্তে তিনি আদালতের এই সুযোগ পেয়েছেন। আজ সোমবার সাতক্ষীরার জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ( দ্বিতীয় আদালত) ইয়াসমিন নাহার এই রায় দেন। রায়ের সময় আসামি ইমাম হোসেন আদালতের কাঠগড়ায় উপস্থিত ছিলেন।

মামলার নথি ও আদালতসংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, ২০১৮ সালে এক কেজি গাঁজাসহ সাতক্ষীরা সদর উপজেলার ভাদড়া গ্রামের ইমাম হোসেনকে আটক করে পুলিশ। পরে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে পুলিশের করা মামলায় ইমাম হোসেনকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়। এ মামলায় তিনি দীর্ঘদিন জেলও খাটেন। পুলিশ তাঁর নামে অভিযোগপত্র আদালতে জমা দেয়। আজ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত তাঁকে ছয় মাসের কারাদণ্ড দেন। তবে চার শর্তে তিনি কারাগারে না থেকে বাড়িতে থাকতে পারবেন বলে আদালতের নির্দেশনায় বলা হয়। শর্তগুলো হচ্ছে প্রতি সপ্তাহে ১০টি করে গাছের চারা রোপণ, এলাকায় মাদকবিরোধী প্রচার চালানো, মায়ের সেবা করা ও মাদকসেবন না করা।

বিজ্ঞাপন

মামলার আইনজীবী মো. সাইফুল্লাহ বলেন, আদালত একটি যুগান্তকারী রায়ে সাজাপ্রাপ্ত আসামিকে চারটি শর্তে বাড়িতে থাকার সুযোগ করে দিয়েছেন।

রায়ের পর সাজাপ্রাপ্ত আসামি ইমাম হোসেন তাঁর প্রতিক্রিয়ায় বলেন, তিনি এই রায়ে খুশি। শর্ত অনুযায়ী, তিনি মাদকবিরোধী প্রচারসহ সব কটি কাজ করে আদালতকে জানাবেন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন