default-image

রংপুরের গঙ্গাচড়া উপজেলায় চালককে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে অটোরিকশা ছিনতাইয়ের চেষ্টা হয়েছে। এ সময় স্থানীয় লোকজন ধাওয়া দিয়ে এক ছিনতাইকারীকে আটক করেছেন। গতকাল মঙ্গলবার রাতে উপজেলার সদর ইউনিয়নের ধামুর বড়মনি বটতলা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনার পর আশঙ্কাজনক অবস্থায় অটোরিকশাচালক তাজুল হোসেনকে (৫০) উদ্ধার করে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়। তাঁর মাথায় ও গলায় একাধিক আঘাতের চিহ্ন আছে।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, তাজুল হোসেনের অটোরিকশা ভাড়া নিয়ে যাত্রী সেজে তিন ব্যক্তি গঙ্গাচড়া বাজার থেকে রওনা হন। অটোরিকশাটি গতকাল রাত সাড়ে ১০টার দিকে বটতলা এলাকায় পৌঁছালে ওই তিনজন অটোরিকশাটি ছিনিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করেন। এতে বাধা দিলে তাঁরা অটোরিকশাচালক তাজুলের গলায় ও মাথায় ধারালো ছুরি দিয়ে আঘাত করেন। এ সময় তাঁর চিৎকারে আশপাশের লোকজন এসে এক ছিনতাইকারীকে আটক করেন। বাকি দুজন পালিয়ে যান। পরে আটক ওই ছিনতাইকারীকে পিটুনি দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করা হয়।

আটক ওই ছিনতাইকারীর নাম শাহ পরান (৩০)। তাঁর বাড়ি উপজেলার পূর্ব গান্নারপাড় এলাকায়।

গঙ্গাচড়া মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) নুর আলম বলেন, আটক ছিনতাইকারী শাহ পরানকে পুলিশি হেফাজতে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। পালাতক দুই ছিনতাইকারীকে আটকের চেষ্টা চলছে।

বিজ্ঞাপন
জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন