default-image

সিলেটে একটি চায়ের দোকানের চুলার পাশ থেকে শিশুর দুটি খণ্ডিত পা পাওয়া গেছে। স্থানীয় ব্যক্তিদের মাধ্যমে খবর পেয়ে সিলেট নগরের চারাদিঘীরপাড় এলাকা থেকে আজ সোমবার দুপুর ১২টার দিকে পা দুটি উদ্ধার করে পুলিশ।

স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, আজ সকালে চারাদিঘীরপাড় এলাকার বাসিন্দা হারুন মিয়া নামের এক ব্যবসায়ী ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান খোলেন। তিনি বিভিন্ন মালামালের পাশাপাশি চা–ও বিক্রি করেন। ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান খোলার পর চুলায় আগুন জ্বালাতে গিয়ে দুটি খণ্ডিত পা দেখতে পান। পরে তিনি স্থানীয় ব্যক্তিদের বিষয়টি অবহিত করে সিলেট কোতোয়ালি থানা–পুলিশকে খবর দেন। দুপুর ১২টার দিকে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পা দুটি উদ্ধার করে।

পুলিশ বলছে, ধারণা করা হচ্ছে—উদ্ধার হওয়া পা দুটি ছয় থেকে সাত মাস বয়সী শিশুর। স্থানীয় ব্যক্তিদের মাধ্যমে জানা গেছে, এর আগেও ওই এলাকায় একাধিকার এমন ঘটনা ঘটেছে। ওই এলাকার পাশ্ববর্তী স্থানে কবরস্থান থাকায় অনেক সময় কুকুর ও শিয়াল কবর থেকে মৃত ব্যক্তিদের শরীরের অংশ নিয়ে এসে সড়কে ফেলে দেয়। এরপরও বিষয়টি পুলিশ খতিয়ে দেখছে।

বিজ্ঞাপন

পুলিশ জানায়, উদ্ধার হওয়া শিশুর খণ্ডিত পা দুটি ময়নাতদন্তের জন্য সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ছাড়া ঘটনার তদন্তে আশপাশের ক্লোজড সার্কিট ক্যামেরার ভিডিও ফুটেজ নিয়ে তদন্ত করা হচ্ছে।

সিলেট কোতোয়ালি থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মোহাম্মদ ইয়াছিন বলেন, স্থানীয় ব্যক্তিরা জানিয়েছেন পাশ্ববর্তী স্থানে কবর থাকায় অনেক সময় কুকুর-শিয়াল শিশুর মাথার খুলি ও শরীরের বিভিন্ন অংশ কবর থেকে তুলে নিয়ে সড়কে এবং আশপাশে ফেলে দেয়। এরপরও বিষয়টি গুরুত্বের সঙ্গে তদন্ত করা হচ্ছে।

মোহাম্মদ ইয়াছিন বলেন, উদ্ধার হওয়া শিশুর পা দুটি ছয় থেকে সাত মাস বয়সী শিশুর বলে ধারণা করা হচ্ছে। এ ঘটনায় থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করে পা দুটি ময়নাতদন্তের ব্যবস্থা করা হবে। পরবর্তী সময়ে ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন পাওয়ার পর বিস্তারিত জানা যাবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন