default-image

সাতক্ষীরার শ্যামনগর উপজেলার একটি চিংড়ির ঘের থেকে এক গৃহবধূর লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। আজ শুক্রবার সকাল নয়টার দিকে উপজেলার ভুরুলিয়া ইউনিয়নের অনন্তপুর-মাজাট গ্রামের চিংড়ির ঘের থেকে লাশটি উদ্ধার করে পুলিশ।
ওই লাশ নুরুন্নেছা বেগম (৩৩) নামের এক গৃহবধূর। তিনি একই গ্রামের আবদুল গফ্ফার গাজীর স্ত্রী এবং চার সন্তানের জননী।

নিহত গৃহবধূর স্বামী আবদুল গফ্ফার বলেন, গতকাল বৃহস্পতিবার এশার নামাজের পর থেকে তাঁর স্ত্রী নুরুন্নেছা বেগমের খোঁজ পাওয়া যাচ্ছিল না। আশপাশসহ বিভিন্ন জায়গায় রাতভর খোঁজাখুঁজি করেও তাঁর কোনো হদিস মেলেনি। পরে আজ ভোরে বাড়ি থেকে এক কিলোমিটার দূরে মোশারফ হোসেনের চিংড়ি ঘেরের পানিতে তাঁর লাশ ভাসতে দেখেন স্থানীয় লোকজন। খবর পেয়ে পুলিশ এসে লাশটি উদ্ধার করে।

বিজ্ঞাপন

পরিবার সূত্রে জানা যায়, নুরুন্নেছা বেগম প্রায়ই মানসিক ভারসাম্য হারিয়ে বাড়ি ছেড়ে বাইরে চলে যেতেন। পরে খোঁজাখুঁজি করে তাঁকে বাড়িতে ফিরিয়ে আনা হতো। তবে গতকাল রাতে বাড়ির পেছন দিকের চিংড়ি ঘের এলাকায় নুরুন্নেছা বেগমের যাওয়া ও তাঁর মৃত্যুর কারণ সম্পর্কে কিছুই ধারণা করা যাচ্ছে না।

শ্যামনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. নাজমুল হুদা বলেন, গৃহবধূর লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য সাতক্ষীরার হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় নিহত ওই গৃহবধূর স্বামীকে থানায় এনে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। তবে এ ঘটনায় থানায় কেউ অভিযোগ করেননি।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন