default-image

চিকিৎসক না হয়েও নামের আগে চিকিৎসক পদবি ব্যবহার করায় সিরাজগঞ্জের বেলকুচিতে সেলিম রেজা নামের এক ব্যক্তিকে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইনে জরিমানা করা হয়েছে। আজ রোববার বিকেলে জাতীয় ভোক্তা-অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর জেলা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক মাহমুদ হাসানের নেতৃত্বে পরিচালিত অভিযানে এই জরিমানা করা হয়।

সেলিম রেজা বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর এনায়েতপুর থানা শাখার আমির। উপজেলার গোপালপুর বটতলা ও মুকুন্দগাতী বাজার এলাকায় পরিচালিত তদারকি অভিযানে মোট পাঁচ ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা করা হয়েছে।

জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর জেলা কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, রোববার বিকেলে বেলকুচির দুটি বাজার এলাকায় ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানের কার্যক্রম তদারকি করা হয়। উপজেলার গোপালপুর বটতলা বাজার এলাকায় সেলিম রেজা কেবল ডিপ্লোমা পাস করে পল্লিচিকিৎসক হয়েও নিজের নামের আগে ‘ডাক্তার’ লিখে ভুয়া বিজ্ঞাপন দিয়ে রোগীদের চিকিৎসা দিচ্ছিলেন। এ জন্য তাঁকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

বিজ্ঞাপন

একই বাজারের একটি ওষুধের ফার্মেসিতে রেফ্রিজারেটরে রাখা মেয়াদোত্তীর্ণ অনেক ওষুধ পাওয়ায় ৪ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। এ ছাড়া ইফতার সামগ্রী ও ফলের দোকানগুলাতে মূল্যতালিকা ও রসিদ ভাউচার না দিয়ে অধিক মূল্যে ফল ও ইফতার সামগ্রী বিক্রয় করায় মুকুন্দগাতি বাজারের তিনটি দোকানিকে ৯ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

জরিমানার বিষয়ে জামায়াত নেতা সেলিম রেজা বলেন, ‘আমরা করোনাকালে সামনের সারিতে থেকে জনগণকে সেবা দিয়ে যাচ্ছি। জরিমানা করা হয়েছে, তাই আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হয়ে সেটি পরিশোধ করেছি। তবে চিকিৎসক লিখতে পারব কি না, সে বিষয়ে মহামান্য হাইকোর্টে একটি রিট হয়েছে, এখনো সেটির সুরাহা হয়নি।’

ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক মাহমুদ হাসান বলেন, বাজার অভিযানে ভোক্তা অধিকারবিরোধী কার্যক্রম করায় পাঁচটি প্রতিষ্ঠানকে মোট ৩৩ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। এ সময় জনগণের মধ্যে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ বিষয়ে সচেতনতামূলক লিফলেট বিতরণ করা হয়েছে। সহযোগিতায় ছিলেন উপজেলা স্যানিটারি পরিদর্শক ও সিরাজগঞ্জ পুলিশের সদস্যরা।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন