বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

আলমডাঙ্গা উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা (ইউএইচএফপিও) হাদী মো. জিয়াউদ্দিন প্রথম আলোকে বলেন, পেটে ব্যথা নিয়ে মালেকা বেগম ভর্তি হলেও দীর্ঘদিন ধরে মানসিক অস্থিরতায় ভুগছিলেন। ধারণা করা হচ্ছে, মানসিক অস্থিরতার কারণে তিনি আত্মহত্যা করেছেন। তিনি আরও বলেন, ‘১৪ বছরের চাকরিজীবনে সরকারি হাসপাতালে এই প্রথম কোনো আত্মহত্যার ঘটনা দেখলাম।’

আলমডাঙ্গা থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. তুহিনুজ্জামান বলেন, পরিস্থিতি দেখার জন্য উপপরিদর্শক (এসআই) কামরুল ইসলামকে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পাঠানো হয়েছে। ওই নারীর পরিবারের সদস্যরা মামলা করতে আগ্রহী নন। পুলিশ সুপারের অনুমোদন নিয়ে লাশ হস্তান্তরের প্রস্তুতি চলছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন