সর্বাত্মক লকডাউন উপেক্ষা করে কুড়িগ্রামের চিলমারীতে ব্রহ্মপুত্র নদের বিভিন্ন পয়েন্টে সনাতন ধর্মাবলম্বী পুণ্যার্থীদের ঢল নেমেছে। আজ মঙ্গলবার সকালে
সর্বাত্মক লকডাউন উপেক্ষা করে কুড়িগ্রামের চিলমারীতে ব্রহ্মপুত্র নদের বিভিন্ন পয়েন্টে সনাতন ধর্মাবলম্বী পুণ্যার্থীদের ঢল নেমেছে। আজ মঙ্গলবার সকালেপ্রথম আলো

সরকারি বিধিনিষেধ উপেক্ষা করে কুড়িগ্রামের চিলমারীতে ব্রহ্মপুত্র নদের বিভিন্ন পয়েন্টে সনাতন ধর্মাবলম্বী পুণ্যার্থীদের ঢল নেমেছে। আজ মঙ্গলবার পুণ্যস্নান উপলক্ষে দুই দিন আগে থেকেই দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে সিএনজিচালিত অটোরিকশা, ইজিবাইক, রিকশা ভ্যান ও মোটরসাইকেলে করে পুণ্যার্থীরা চিলমারীতে পুণ্যস্নানে অংশ নিতে ভিড় জমান। প্রশাসন থেকে স্বাস্থ্যবিধি মানার ব্যাপারে সতর্ক করে প্রচার চালালেও তা কাজে লাগেনি। ফলে হাজারো নারী-পুরুষ স্বাস্থ্যবিধি না মেনে সকাল থেকে দল বেঁধে ব্রহ্মপুত্র নদের বিভিন্ন পয়েন্টে পুণ্যস্নানে অংশ নেন।

আদিকাল থেকে সনাতন ধর্মাবলম্বীরা পাপ মোচনের জন্য চিলমারীর ব্রহ্মপুত্র নদে ‘অষ্টমীর স্নান’ করে থাকেন। এবার দেশব্যাপী করোনাভাইরাস সংক্রমণ ও মৃত্যু বৃদ্ধি পাওয়ায় পরিস্থিতি ভিন্ন। পাশাপাশি চলছে ‘সর্বাত্মক লকডাউন’। দেশব্যাপী লকডাউনের সময় নিষেধাজ্ঞা ভেঙে স্নান করতে আসার ব্যাপারে কয়েকজন পুণ্যার্থী বলেন, ‘এটা আমাদের ধর্মীয় অনুষ্ঠান। আমাদের স্বর্গীয় মাতাপিতার মঙ্গল কামনার জন্য আমরা এখানে এসেছি।’

default-image

এ ব্যাপারে চিলমারী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এ ডব্লিউ এম রায়হান শাহ বলেন, ‘পুণ্যার্থীরা ভোরে বিচ্ছিন্নভাবে উৎসবে যোগ দিয়েছেন বলে খবর পেয়েছি। তাঁদের ফিরিয়ে দিতে পুলিশকে বলা হয়েছে। এ ছাড়া ভোর থেকে স্নানের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করে প্রচারণা চালানো হচ্ছে।’

বিজ্ঞাপন
জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন