default-image

যশোরের চৌগাছা উপজেলার চাকলা গ্রামে আশা ওরফে হাসু (২৬) নামের এক গৃহবধূর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। আজ রোববার সকালে বসতবাড়ির সিঁড়ি ঘরের চিলেকোঠা থেকে লাশটি উদ্ধার করা হয়।

নিহত আশা চৌগাছার চাকলা গ্রামের আলাউদ্দীনের স্ত্রী। দুবাইপ্রবাসী আলাউদ্দীন সম্প্রতি বাড়িতে ফিরেছেন। এ দম্পতির একটি ছেলেসন্তান রয়েছে।

পুলিশ ও স্থানীয় বাসিন্দা সূত্রে জানা গেছে, রোববার সকালে বসতবাড়ির সিঁড়ির ওপরের চিলেকোঠার টিনের চালের আড়ার সঙ্গে আশার লাশ ঝুলতে দেখেন পরিবারের সদস্যরা। পরে স্বজনেরা লাশটি নামিয়ে পুলিশে খবর দেন। পুলিশ লাশটি উদ্ধার করে সুরতহাল প্রতিবেদন করে ময়নাতদন্তের জন্য যশোর জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠায়।

সুরতহাল প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে, লাশের হাত ও পায়ের বিভিন্ন স্থানে ব্লেড দিয়ে জখম করা ছিল। রক্তমাখা একটি ব্লেড লাশের পাশ থেকে উদ্ধার করেছে পুলিশ।

আশার বাবা মোহাম্মদ উল্লাহ অভিযোগ করেছেন, তাঁর মেয়েকে হত্যা করা হয়েছে। তিনি বলেন, ‘বিপদে পড়ে জামাতা আলাউদ্দীনের কাছে ১ লাখ ৪০ হাজার টাকা দামে একটি জমি বিক্রি করেছি। গতকাল শনিবার আলাউদ্দীন আমার কাছে ২ লাখ টাকা দাবি করেন। আমি টাকা দিতে পারব না। বলেছি, জমিটা অন্য কোথাও বিক্রি করে দাও। তখন আলাউদ্দীন রাগারাগি করে বাড়ি চলে যায়। আজ সকালে শুনি, আমার মেয়ে মারা গেছে। মেয়ের বাড়ি এসে দেখি, তার হাত ও পায়ের রগ কাটা। গায়ে খেজুরের কাটা ফোটানো।’

বিজ্ঞাপন

এ বিষয়ে জানতে চাইলে যশোরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার তৌহিদুল ইসলাম বলেন, পারিবারিক গন্ডগোলের জেরে আশার মৃত্যু হয়েছে। লাশের সুরতহাল করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন হাতে এলে বোঝা যাবে এটি হত্যা, নাকি আত্মহত্যা।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার তৌহিদুল ইসলাম দুপুরে জানান, এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আলাউদ্দীনকে থানায় নেওয়া হয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন