default-image

সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়া উপজেলায় এক কিশোরের (১৬) বিরুদ্ধে মুঠোফোন চুরির তথ্য দেওয়ায় ইমন হোসেন (১২) নামের এক স্কুলছাত্রকে শ্বাসরোধে হত্যা করার অভিযোগ উঠেছে। বুধবার বিকেলে উপজেলার বড় পাঙ্গাসী ইউনিয়নের বড় কোয়ালিবেড় গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

ইমন ওই গ্রামের আমিরুল ইসলামের ছেলে। সে বড় কোয়ালিবেড় উচ্চবিদ্যালয়ের ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্র। এ ঘটনায় অভিযুক্ত কিশোরকে আটক করেছে পুলিশ।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার বড় পাঙ্গাসী ইউনিয়নের বড় কোয়ালিবেড় গ্রামে ১৫ এপ্রিল আবু সাঈদ নামের এক ব্যক্তির মুঠোফোন চুরি করে ওই কিশোর। চুরির বিষয়টি স্কুলছাত্র ইমন জানতে পেরে আবু সাঈদকে জানিয়ে দিলে এতে ক্ষুব্ধ হয় ওই কিশোর। বুধবার বিকেলে গ্রামের মাঠে ইমন খেলতে গেলে ওই কিশোর পরিকল্পিতভাবে তাকে ডেকে পাশের ভুট্টাখেতে নিয়ে গলায় গামছা পেঁচিয়ে শ্বাসরোধে হত্যা করে লাশ ফেলে রাখে। বিষয়টি বুঝতে পেয়ে ভুট্টাখেতের মালিক গোলাপ মিয়া স্থানীয়দের ডেকে ওই কিশোরকে আটক করে পুলিশকে জানায়। পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে তাকে আটক করে লাশ উদ্ধার করে থানায় নিয়ে যায়।

বিজ্ঞাপন

বিষয়টি নিশ্চিত করে উল্লাপাড়া মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা দীপক কুমার দাস বুধবার সন্ধ্যায় প্রথম আলোকে জানান, ইমনের লাশটি উদ্ধার করে থানায় আনা হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকালে ময়নাতদন্তের জন্য তার লাশ সিরাজগঞ্জ ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব জেনারেল হাসপাতালে পাঠানো হবে। অভিযুক্ত কিশোরকে আটক করে থানা হেফাজতে রাখা হয়েছে। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে। বৃহস্পতিবার সকালে ওই কিশোরকে আদালতে তোলা হবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন