default-image

চুয়াডাঙ্গা জেলা আওয়ামী লীগের প্রচার সম্পাদক ফেরদৌস ওয়ারা সুন্না (৬০) কোভিডে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন। গতকাল বুধবার রাত ১০টা ১০ মিনিটে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালের কোভিডে ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। কোভিড-১৯ শনাক্ত হওয়ার পর জেলায় এটি প্রথম মৃত্যুর ঘটনা।

সদর হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা (আরএমও) শামীম কবির জানান, গত সোমবার ফেরদৌস ওয়ারা কোভিডের উপসর্গ নিয়ে অসুস্থ হলে তাঁর নমুনা নিয়ে পরীক্ষার জন্য কুষ্টিয়া পিসিআর ল্যাবে পাঠানো হয়। মঙ্গলবার রাতে ফেরদৌস ওয়ারাসহ ১৬ জনের করোনা পজিটিভ হিসেবে প্রতিবেদন আসে।

আরএমও বলেন, কোভিডে পজিটিভ শনাক্তের পর মঙ্গলবার রাতেই আওয়ামী লীগ নেতা ফেরদৌস ওয়ারাকে সদর হাসপাতালে আইসোলেশনে থাকতে অনুরোধ করা হয়। তিনি বাড়িতে আইসোলেশনে থাকতে আগ্রহ প্রকাশ করেন। বাড়ি থাকাকালে বুধবার সন্ধ্যায় শ্বাসকষ্ট বেড়ে অসুস্থ হয়ে পড়লে পরিবারের সদস্যরা তাঁকে হাসপাতালে নিয়ে আসেন। হাসপাতালের কোভিডে ওয়ার্ডের রেডজোনে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাত ১০টা ১০ মিনিটে তিনি মারা যান।

জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, জেলায় এ পর্যন্ত ২ হাজার ৪৩৬ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ৩৩৬ জনকে কোভিড-১৯ রোগী হিসেবে শনাক্ত করা হয়েছে। তাঁদের মধ্যে তিনজন মারা যাওয়ার পর নমুনা পরীক্ষায় কোভিড পজিটিভ হিসেবে শনাক্ত হন। কোভিড শনাক্ত হওয়ার পর জেলায় প্রথম ব্যক্তি হিসেবে মারা গেলেন আওয়ামী লীগ নেতা ফেরদৌস ওয়ারা।

জেলা প্রশাসক মো. নজরুল ইসলাম সরকার প্রথম আলোকে জানান, কোভিড-১৯ রোগে মারা যাওয়ায় আওয়ামী লীগ নেতা ফেরদৌস ওয়ারাকে স্বাস্থ্যবিধি অনুযায়ী দাফন করা হবে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0