বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

গ্রেপ্তার দুজন হলেন পৌর এলাকার রুবেল হোসেন (৩২) ও নাজিম উদ্দিন (৩০)। এজাহারভুক্ত আরেক আসামি একই এলাকার বিল্লাল হোসেনকে ধরতে অভিযানে নেমেছে পুলিশ। ২৫ ডিসেম্বর রাতে ওই গৃহবধূকে তুলে নিয়ে দলবদ্ধ ধর্ষণ করা হয় বলে মামলায় অভিযোগ করা হয়েছে।

পুলিশ ও মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, ২৫ ডিসেম্বর রাতে ওই গৃহবধূ খেজুরের গুড় কিনে ব্যাটারিচালিত ভ্যানে করে চুয়াডাঙ্গা পৌর এলাকার বাড়িতে ফিরছিলেন। রাত আটটার দিকে মোটরসাইকেল আরোহী তিন ব্যক্তি ওই ভ্যানের গতিরোধ করেন। এরপর তাঁকে ভ্যান থেকে নামিয়ে ইটভাটার পাশের একটি আমবাগানে নিয়ে দলবদ্ধ ধর্ষণ করা হয়। গৃহবধূকে তুলে নিয়ে যাওয়ার সময় ভ্যানচালক বাধা দিলে তাঁকেও মারধর করা হয়।

সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ মহসীন প্রথম আলোকে বলেন, লোকলজ্জার ভয়ে ওই গৃহবধূ দুই দিন বিষয়টি গোপন রাখেন। পরে গতকাল রাতে তিনি থানায় এসে তিনজনকে অভিযুক্ত করে মামলা করেন। মামলার পর রাতেই এজাহারভুক্ত দুজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। মামলার আরেক আসামিকে ধরতে অভিযান চলছে।

ওসি জানান, ওই গৃহবধূর স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য আজ মঙ্গলবার সকালে জেলা সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। গ্রেপ্তার দুই আসামিকে আজ আদালতে নিয়ে রিমান্ড চাওয়া হবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন