বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

আটক দুজন হচ্ছেন ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলার আঠারবাড়ি ইউনিয়নের বিষ্ণুপুর গ্রামের ইউসুফ মিয়ার ছেলে মতিউর রহমান ওরফে মতি (৩২) ও নেত্রকোনার কেন্দুয়া উপজেলার বলাইশিমুল ইউনিয়নের কুণ্ডলা গ্রামের আবদুর রশিদের ছেলে মিন্টু মিয়া (৩০)।

আটক দুজনের কাছ থেকে পুলিশ পালিয়ে যাওয়া অপর যুবকের নামপরিচয় জানতে পেরেছে। তিনি হলেন কেন্দুয়ার কুণ্ডলা গ্রামের আলতু মিয়ার ছেলে পিপলু মিয়া (৩০)।

পুলিশ জানায়, গতকাল রাতে ঈশ্বরগঞ্জের আঠারবাড়ি ইউনিয়নের রায়েরবাজার পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের একটি দল সড়কে টহল দিচ্ছিল। এ সময় একটি ইজিবাইক টহল দলকে পাশ কাটিয়ে দ্রুতবেগে চলে যাচ্ছিল। সন্দেহ হওয়ায় সেটিকে থামার সংকেত দেন পুলিশ সদস্যরা।

এ সময় ইজিবাইকটি সড়কে থামিয়ে তিন আরোহী দৌড়ে পালানোর চেষ্টা করেন। একজন পালিয়ে যেতে সক্ষম হলেও মতিউর রহমান ও মিন্টু মিয়া ধরা পড়েন। পরে তাঁদের পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়।

খবর পেয়ে আজ সকাল ১০টার দিকে পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রে আসেন কেন্দুয়া উপজেলার বলাইশিমুল ইউনিয়নের কুণ্ডলা গ্রামের বাসিন্দা উজ্জ্বল মিয়া। তিনি পুলিশকে বলেন, উদ্ধার হওয়া ইজিবাইকটি তাঁর। সেটি গতকাল রাতে তিনি চার্জারে সংযুক্ত করে রেখেছিলেন। সেখান থেকে গভীর রাতে ইজিবাইকটি চুরি করে নিয়ে যায় দুর্বৃত্তরা। বিভিন্ন তথ্যপ্রমাণ যাচাই করে পুলিশ নিশ্চিত হয়, ইজিবাইকটি উজ্জ্বল মিয়ারই।

রায়েরবাজার পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের পরিদর্শক রফিকুল ইসলাম বলেন, উজ্জ্বল মিয়া তাঁর চুরি হয়ে যাওয়া ইজিবাইকটি শনাক্ত করেছেন। তিনি তিনজনের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন। আটক দুই ব্যক্তিকে ওই মামলায় আদালতে পাঠানোর প্রক্রিয়া চলছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন