বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

ইলেকট্রনিকের ব্যবসায়ী নয়ন বড়ুয়া ও কুলিং কর্নারের মালিক অনুপম মহাজন বলেন, ‘আমরা দুই মাস আগে কাগজের বাক্স দিয়ে চড়ুই পাখিদের জন্য বাসাগুলো তৈরি করে দিয়েছি। বাসাগুলোতে চড়ুইয়ের ছানাও ফুটেছে। ছানাগুলো বড় হয়েছে। আমরা শুধু বাক্সগুলো বেঁধে দিয়েছি। চড়ুই পাখিরা বাক্সে খড়কুটো এনে বসবাসযোগ্য করে তুলেছে। এখন বাক্সগুলোতেই চড়ুই পাখিরা বসবাস করছে।’

পরিবার পরিকল্পনা অধিদপ্তরের কবাখালী ইউনিয়ন পরিদর্শক মো. আবদুর রহমান বলেন, ‘চড়ুই পাখিদের জন্য ব্যবসায়ীদের বাসা তৈরি করে দেওয়ার উদ্যোগ ও বাসাগুলো দেখে খুবই ভালো লেগেছে। এটা পাখিদের প্রতি ভালোবাসার বহিঃপ্রকাশ।’

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন