default-image

সিলেটের জৈন্তাপুর উপজেলায় ছাগলে ধানের চারা খাওয়া নিয়ে দুই পরিবারের মধ্যে সংঘর্ষে এক তরুণ নিহত হয়েছেন। গতকাল শুক্রবার চিকিৎসাধীন অবস্থায় সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে তিনি মারা যান। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন অপর দুজন।

নিহত ওই তরুণের নাম সুফিয়ান আহমদ (১৯)। তিনি জৈন্তাপুরের চারিকাটা ইউনিয়নের সরুখেল পূর্ব গ্রামের সিদ্দেক মিয়ার ছেলে। এ ঘটনায় নাসির আহমদ নামের একজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, গত বৃহস্পতিবার দুপুরে উপজেলার সরুখেল পূর্ব গ্রামের সিদ্দেক মিয়ার একটি ছাগল প্রতিবেশী হারিছ আহমদ ও নাছির মিয়ার ধানের বীজতলার চারা খেয়ে ফেলে। এ নিয়ে দুই পরিবারের সদস্যদের মধ্যে বাগ্‌বিতণ্ডা হয়। একপর্যায়ে তাঁরা সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন। এতে সিদ্দেক মিয়ার ছেলে সুফিয়ান আহমদ গুরুতর আহত হন। স্থানীয় লোকজন তাঁকে উদ্ধার করে জৈন্তাপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান। অবস্থার অবনতি হলে সেখান থেকে সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়। পরে গতকাল ভোরে সুফিয়ান চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।

এ ঘটনায় গতকাল বিকেলে নিহত সুফিয়ানের বড় ভাই বাহার উদ্দিন ছয়জনের নাম উল্লেখ করে জৈন্তাপুর থানায় হত্যা মামলা করেন।

সিলেটের জৈন্তাপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) গোলাম দস্তগীর আহমদ বলেন, হত্যা মামলার এজাহারভুক্ত আসামি নাসির আহমদকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। আজ শনিবার তাঁকে আদালতে পাঠানোর প্রস্তুতি চলছে।

বিজ্ঞাপন
জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন