বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

মামলা সূত্রে জানা গেছে, গত ৩০ ডিসেম্বর বিকেলে দাগনভূঞার একটি মাদ্রাসার এক আবাসিক ছাত্রকে (১৫) ধর্ষণ করেন। পরে ঘটনাটি জানতে পেরে ওই ছাত্রের পরিবার মাদ্রাসার অধ্যক্ষসহ মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষের কাছে অভিযোগ জানিয়ে ঘটনার বিচার দাবি করে। কিন্তু মাদ্রাসার অধ্যক্ষসহ কর্তৃপক্ষ কোনো ব্যবস্থা না নিয়ে উল্টো অভিযুক্ত শিক্ষককে মাদ্রাসা থেকে পালিয়ে যেতে সহায়তা করে।

পরে ওই ছাত্রের মা বাদী হয়ে দাগনভূঞা থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা করেন। এ মামলায় কাউছার, মাদ্রাসার অধ্যক্ষ আবদুস ছাত্তার (৪০), সহকারী শিক্ষক জাকিরুল ইসলাম (৩৯) ও সহকারী শিক্ষক আফতাব উদ্দিনকে (৪০) আসামি করে মামলা করেন। এরপর গত শুক্রবার আবদুস ছাত্তারসহ অন্য দুই শিক্ষককে পুলিশ গ্রেপ্তার করে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠায়।

ফেনী পিবিআইয়ের পরিদর্শক মো. মোনায়েম মিয়া বলেন, মামলার প্রধান আসামি কাউছার পলাতক ছিলেন। শনিবার রাতে তাঁকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। গতকাল রাতে তিনি আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। ওই দিনই কাউছারকে ফেনী জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন