default-image

পাবনার ঈশ্বরদী রপ্তানি প্রক্রিয়াজাত অঞ্চলের একটি প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তার কাছে চাঁদা দাবি ও মারপিটের অভিযোগে ছাত্রলীগের নেতাসহ তিনজনকে আসামি করে মামলা হয়েছে। এ ঘটনায় মঙ্গলবার দুপুরে দুজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

গ্রেপ্তার হওয়া দুজন হলেন ঈশ্বরদী উপজেলা সদরের শেরশাহ সড়কের বাসিন্দা সজীব হোসেন (২২) ও আলোবাগ এলাকার নাঈম হোসেন (২০)। আরেক আসামি হলেন ঈশ্বরদী সরকারি কলেজ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সাব্বির হোসেন (২৫)।

সাব্বিরের দলীয় পরিচয় নিশ্চিত করে ঈশ্বরদী উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি রাকিবুল হাসান বলেন, ‘চাঁদাবাজির এই অভিযোগের বিষয়টি আমার জানা নেই। অপরাধের প্রমাণ পেলে ওই নেতার বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

গতকাল সোমবার রাতে নাকানো ইন্টারন্যাশনাল কোম্পানি লিমিটেডের মানবসম্পদ বিভাগের ব্যবস্থাপক মমিনুল ইসলাম বাদী হয়ে মামলাটি করেন। তাঁর বাড়ি উপজেলা সদরের স্কুলপাড়ায়।

বিজ্ঞাপন

এজাহার সূত্রে জানা গেছে, গত ৯ অক্টোবর রাতে মমিনুল ইসলাম নিজ বাড়িতেই ছিলেন। রাত ৮টার দিকে আসামি সজীব তাঁকে মুঠোফোনে বাড়ির পাশে আসতে বলেন। সেখানে এলে আসামিরা তাঁর প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে যাঁরা ব্যবসা করেন, তাঁদের নাম–ঠিকানা জানতে চান। তিনি নাম–ঠিকানা দিতে না চাইলে আসামিরা তাঁকে মারপিট করেন ও ৫০ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করেন। তিনি সুস্থ হয়ে ও তাঁর প্রতিষ্ঠানের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সঙ্গে আলোচনা করে মামলা করেছেন।

এ প্রসঙ্গে ঈশ্বরদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সেখ মো. নাসির উদ্দীন বলেন, গতকাল দুপুরে দুজনকে গ্রেপ্তার করে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। অন্য আসামিদের ধরতে অভিযান অব্যাহত আছে।

মন্তব্য পড়ুন 0