default-image

ময়মনসিংহের নান্দাইল উপজেলায় এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে গত বৃহস্পতিবার রাতে ঘরে ঢুকে ছুরি ধরে গৃহবধূকে ধর্ষণের চেষ্টার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় তিনি আজ শনিবার থানায় অভিযোগ করেছেন। পুলিশ জানিয়েছে, ঘটনার তদন্ত করা হচ্ছে।

ওই ব্যক্তির নাম মো. এরশাদ (৪০)। তিনি উপজেলার মহাবৈ এলাকার বাসিন্দা। এ বিষয়ে কথা বলার জন্য বাড়িতে গিয়েও তাঁকে পাওয়া যায়নি। এরশাদ কোথায় আছেন, তা তাঁর পরিবারের লোকজন বলতে রাজি হননি।

বিজ্ঞাপন
এ বিষয়ে কথা বলার জন্য বাড়িতে গিয়েও এরশাদকে পাওয়া যায়নি। তিনি কোথায় আছেন, তাঁর পরিবারের লোকজন বলতে রাজি হননি।

ওই নারী জানান, তাঁর স্বামী কর্মসূত্রে ঢাকায় থাকেন। এরশাদ তাঁকে কিছুদিন ধরে কুপ্রস্তাব দিয়ে উত্ত্যক্ত করছিলেন। তিনি ভয়ে ও লজ্জায় ঘটনাটি কাউকে বলেননি। তিনি রাতে দাদিশাশুড়ির সঙ্গে ঘুমান। গত বৃহস্পতিবার রাতেও তিনি ঘুমিয়ে পড়েন। দাদিশাশুড়ি গভীর রাতে প্রাকৃতিক কাজে সাড়া দিতে বাইরে যান। এ সময় এরশাদ ঘরে ঢুকে তাঁকে ধর্ষণের চেষ্টা করেন। তিনি বাধা দিলে এরশাদ তাঁর বুকে ছুরি ধরে ভয় দেখিয়ে ধর্ষণের চেষ্টা চালান। এ সময় দাদিশাশুড়ি ঘরে ঢুকলে এরশাদ পালিয়ে যান। তিনি ঘটনাটি দাদিশাশুড়িকে খুলে বলেন।

পরদিন ওই গৃহবধূ এলাকার লোকজনকে নিয়ে সিংরইল ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান মো. সাইফুল ইসলামকে ঘটনাটি জানান। আজ সকালে ওই গৃহবধূর বাড়ির কাছে বিট পুলিশিংয়ের ধর্ষণ ও নারী নির্যাতনবিরোধী সমাবেশ চলছিল। সেখানে বিচারের দাবিতে গেলে তাঁকে থানায় যেতে বলা হয়। পরে স্বামী, স্বজন ও গ্রামবাসীদের সঙ্গে নিয়ে তিনি দুপুর ১২টার দিকে থানায় যান।

বিজ্ঞাপন

জানতে চাইলে ইউপি চেয়ারম্যান মো. সাইফুল ইসলাম বলেন, ওই নারী একবার তাঁর কাছে আসলেও পরে আর যোগাযোগ করেননি।

এ বিষয়ে নান্দাইল মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ মিজানুর রহমান আকন্দ প্রথম আলোকে বলেন, ওই নারী থানায় অভিযোগ করেছেন। ঘটনাটি তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

মন্তব্য পড়ুন 0