বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

বাহেচ আলীর চাচা মতিউর রহমান বলেন, ‘বাহেচ আলীর চিৎকারে ঘুম থেকে জেগে দৌড়ে ঘটনাস্থলে যাই। এ সময় বাহেচ আলী জানায়, তাঁর স্ত্রীকে বেলাল হত্যা করেছে। পরে দৌড়ে বেলালের ঘরে গিয়ে দেখি, সে সপরিবারে ঘুমিয়ে আছে। ধারণা করা হচ্ছে, বাড়ির জমিজমা নিয়ে বিরোধের জেরে ছোট ভাই বেলালকে ফাঁসানোর জন্যই মাদকাসক্ত বাহেচ আলী পরিকল্পনা করে তাঁর স্ত্রীকে হত্যা করেছে। এর আগেও বাহেচ আলী তাঁর ছোট ভাই বেলালকে মারধর করে অনেকবার মিথ্যা মামলায় ফাঁসানোর চেষ্টা করেছে।’

নিহত স্বপ্ন খাতুন ও তাঁর ছোট মেয়ে হোসনেয়ারা খাতুন একই ঘরে ঘুমিয়ে ছিলেন। হোসনেয়ারা প্রথম আলোকে বলেন, ‘বাবা রাত তিনটার দিকে বাড়িতে এসে ঘর থেকে মাকে ডেকে নিয়ে যায়। কিছু সময় পর চিৎকার করে বলে, তোর চাচা বেলাল তোর মাকে খুন করেছে। পরে দেখি মা রক্তাক্ত অবস্থা পড়ে আছে, কোনো কথা সে বলতে পারছে না।’

ধুনট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কৃপাসিন্ধুবালা বলেন, ধারালো অস্ত্রের আঘাতে স্বপ্ন খাতুনকে হত্যা করা হয়েছে। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নিহত স্বপ্নর স্বামী বাহেচ আলীকে আটক করা হয়েছে। ঘটনাটির তদন্ত চলছে। বিস্তারিত পরে জানানো হবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন