default-image

পিরোজপুর সদর উপজেলায় সাহ্‌রি খাওয়া নিয়ে দুই ভাইয়ের মধ্যে বাগ্‌বিতণ্ডার একপর্যায়ে ছোট ভাইয়ের দায়ের কোপে বড় ভাইয়ের মৃত্যু হয়েছে। আজ শুক্রবার ভোর চারটার দিকে উপজেলার শারিখতলা ডুমুরিতলা ইউনিয়নের মাথা বেড়া গ্রামে এই ঘটনা ঘটে।

মারা যাওয়া ওই যুবকের নাম কেরামত আলী মোল্লা (৩০)। তিনি সদর উপজেলার মাথা বেড়া গ্রামের আবদুস সোবাহান মোল্লার ছেলে। তিনি পেশায় মুদি দোকানদার। এ ঘটনায় তাঁর ছোট ভাই মোহাম্মদ আলী মোল্লাকে (২৫) আটক করেছে পুলিশ।

পরিবার ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, শুক্রবার শেষ রাতে সাহ্‌রি খাওয়ার পর মোহাম্মদ আলী মোল্লা বড় ভাই কেরামত আলী মোল্লাকে বলেন, মোটা চালের ভাত তিনি খেতে পারেন না। পরে যেন চিকন চালের ভাত রান্না করা হয়। এ সময় কেরামত আলী মোল্লা মোটা চালের ভাতই রান্না করা হবে বলে জানিয়ে দেন। এ নিয়ে দুই ভাইয়ের মধ্যে বাগ্‌বিতণ্ডা হয়। কথা-কাটাকাটির একপর্যায়ে মোহাম্মদ আলী ঘরে থাকা দা দিয়ে বড়ভাই কেরামত আলীর ঘাড়ের ওপর কোপ দেন। পরিবারের সদস্যরা গুরুতর আহত অবস্থায় কেরামত আলীকে উদ্ধার করে পিরোজপুর সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন। খবর পেয়ে পুলিশ লাশটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পিরোজপুর সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠায়।

বিজ্ঞাপন

শারিখতলা ডুমুরিতলা ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান মিরাজুর রহমান বলেন, মোহাম্মদ আলী মোল্লা বদমেজাজি। তিনি এর আগে তুচ্ছ ঘটনা নিয়ে পরিবারের লোকজনের সঙ্গে ঝগড়া করেন ও ঘরের মালামাল ভাঙচুর করেন। মোহাম্মদ আলী স্থানীয় একটি মসজিদের ইমাম।

পিরোজপুর সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. নূরুল ইসলাম বলেন, অভিযুক্ত মোহাম্মদ আলীকে আটক করা হয়েছে। আটকের পর তিনি তাঁর ভাইকে হত্যার কথা স্বীকার করেন। এ ঘটনায় মামলা প্রক্রিয়াধীন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন