বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

নিহত ওই গৃহবধূর ভাই মো. ফরিদ আহমেদ বলেন, প্রায় ১৫ বছর আগে হেনা খাতুনের বিয়ে হয়। তাঁদের সংসারে দুই সন্তান আছে। তিনি আরও বলেন, ‘গতকালই (শনিবার) আমার বোন পিঠা বানিয়ে নিয়ে শ্বশুরবাড়িতে আসে। সকালে খবর পেলাম সে মারা গেছে।’

এদিকে ঘটনার পর থেকেই নিহত হেনার স্বামী মফিজুর রহমান পলাতক। ফলে এ বিষয়ে তাঁর বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।

মাগুরা সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জয়নুল আবেদীন প্রথম আলোকে বলেন, ছুরিকাঘাত করে ওই গৃহবধূকে হত্যা করা হয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে, পারিবারিক কলহের জেরে রাতের কোনো এক সময়ে তাঁকে হত্যা করে ওই জঙ্গলে ফেলে রাখা হয়। এ ঘটনায় হত্যা মামলা প্রক্রিয়াধীন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন