পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, বাবার সম্পত্তির ভাগ নিয়ে উপজেলার কালামারছড়া ইউনিয়নের ফকিরজুমপাড়ার দুই ভাই হাকিম আলী ও এহেসান আলীর মধ্যে অনেক দিন ধরে বিরোধ চলে আসছিল। বিরোধের জেরে শুক্রবার সকালে দুই ভাইয়ের মধ্যে কথা-কাটাকাটি হয়। একপর্যায়ে বেলা ১১টার দিকে ফকিরজুমপাড়ার নুরুল আমিনের মুদির দোকানের সামনে দুই ভাইয়ের পক্ষের লোকজনের মধ্যে পাল্টাপাল্টি ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। এরই মধ্যে হাকিম আলী বাড়ি থেকে তরল দাহ্যের পাত্র এনে সিরিজ দিয়ে প্রতিপক্ষের লোকজনের ওপর নিক্ষেপ করেন। এতে আজগর আলী ও মনু মিয়ার শরীরের বিভিন্ন অংশ পুড়ে যায়। আর পাল্টাপাল্টি হামলায় আহত হয়েছেন উভয় পক্ষের পাঁচজন। আহত পাঁচজনকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জরুরি বিভাগে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।

উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা মোহাম্মদ মাহফুজুল হক প্রথম আলোকে বলেন, প্রাথমিকভাবে দেখে মনে হয়েছে, দুজন অ্যাসিডে দগ্ধ হয়েছেন। ওই দুজনের শরীরের কয়েকটি স্থানে ঝলসে গেছে। তাই উন্নত চিকিৎসার জন্য তাঁদের কক্সবাজার সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

এ ঘটনায় শুক্রবার সন্ধ্যায় দগ্ধ মনু মিয়ার ছেলে নুরুল আমিন বাদী হয়ে মহেশখালী থানায় তিনজনের বিরুদ্ধে একটি লিখিত অভিযোগ করেন। মহেশখালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. আবদুল হাই প্রথম আলোকে বলেন, ঘটনায় জড়িত হাকিম আলী ও তার দুই ছেলে ওসমান গণি ও মোহাম্মদ রাসেলকে আটক করা হয়েছে। এ ঘটনায় থানায় মামলা নেওয়ার প্রস্তুতি চলছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন