default-image

শেরপুরের নকলা উপজেলায় জমি নিয়ে বিরোধের জেরে প্রতিপক্ষের হামলায় এক নারী নিহত হয়েছেন। গতকাল শুক্রবার সন্ধ্যায় উপজেলার বারারচর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত ওই নারীর নাম শারমিন আক্তার (৪৫)। তিনি উপজেলার পাঠাকাটা ইউনিয়নের বারারচর গ্রামের জহিরুল ইসলামের স্ত্রী। এ ঘটনায় জড়িত সন্দেহে পুলিশ তিনজনকে আটক করেছে। আটক ব্যক্তিরা হলেন বারারচর গ্রামের মো. সুরুজ্জামান, মোজাম্মেল হক ও ফরিদা বেগম।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, প্রায় এক একর জমি নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে বারারচর গ্রামের জহিরুল ইসলামের সঙ্গে প্রতিবেশী বজলু, শোভা, সাইদুল ও মাহবুবের বিরোধ চলে আসছিল। এ নিয়ে মামলাও চলছে। বিরোধপূর্ণ জমি নিয়ে গতকাল শুক্রবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে জহিরুল ইসলামের সঙ্গে তাঁদের বাগ্‌বিতণ্ডা হয়। একপর্যায়ে বজলু ও শোভার নেতৃত্বে ১৫-২০ জন লোক লাঠিসোঁটা ও দেশি অস্ত্র নিয়ে জহিরুল ইসলামের ওপর হামলা চালান। এ সময় জহিরুলের স্ত্রী শারমিন আক্তার স্বামীকে বাঁচাতে গেলে লাঠির আঘাতে তিনি গুরুতর আহত হন ও মাটিতে লুটিয়ে পড়েন। আশঙ্কাজনক অবস্থায় স্থানীয় লোকজন শারমিনকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন।

বিজ্ঞাপন

নিহত শারমিনের মেয়ে নিপা বেগম বলেন, জমি নিয়ে বিরোধের জেরে প্রতিপক্ষের লোকজনের হামলায় তাঁর মা মারা গেছেন। তিনি এ ঘটনার জন্য দায়ী ব্যক্তিদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চান।

আজ শনিবার সকালে নকলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ মুশফিকুর রহমান বলেন, এ ঘটনায় থানায় মামলার প্রক্রিয়া চলছে। নিহত নারীর লাশ ময়নাতদন্তের জন্য জেলা সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। ঘটনার সঙ্গে জড়িত সন্দেহে পুলিশ সুরুজ্জামান, মোজাম্মেল হক ও ফরিদা নামে তিনজনকে আটক করেছে। পুলিশ ঘটনাটি গুরুত্বের সঙ্গে তদন্ত করছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন