বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

মারা যাওয়া ওই মুদিদোকানির নাম মো. আবুল কাশেম (৫৮)। তিনি উপজেলার হাইতকান্দি ইউনিয়নের করুয়া গ্রামের মৃত জালাল আহমেদের ছেলে। এ ঘটনায় আবুল কাশেমের প্রতিবেশী শেখ আহমেদকে আটক করা হয়েছে।

মিরসরাই থানা–পুলিশ ও স্থানীয় জনপ্রতিনিধি সূত্র জানা যায়, গত শুক্রবার রাতে করুয়া গ্রামে বাড়ির পাশের একটি রাস্তায় মাটি ফেলেন শেখ আহমেদ। সকালে তা দেখে তাঁর জায়গায় মাটি পড়েছে বলে প্রতিবাদ করেন মুদিদোকানি আবুল কাশেম। এ নিয়ে কথা–কাটাকাটির একপর্যায়ে শেখ আহমেদ ও তাঁর ছেলে শাহ পরান আবুল কাশেমকে কিলঘুষি মারেন। এতে তিনি অসুস্থ হয়ে পড়েন। স্বজনেরা তাঁকে উদ্ধার করে বাড়ি নেওয়ার পর তিনি মারা যান।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে মিরসরাই থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. মুজিবুর রহমান প্রথম আলোকে জানান, পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে আবুল কাশেমের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠিয়েছে। সুরতহালে আবুল কাশেমের শরীরে আঘাতের চিহ্ন দেখা গেছে। এ ঘটনায় আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন