বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

নাম প্রকাশ না করার শর্তে এক শিক্ষার্থী প্রথম আলোকে বলেন, এক সপ্তাহ আগে বিভাগের সভাপতি বরাবর লিখিতভাবে আবেদন করা হয়েছিল যেন গতকাল সোমবারের মধ্যে ব্যবহারিক পরীক্ষার তারিখ ঘোষণা করা হয়। কিন্তু সেটি করা হয়নি। এদিকে পড়াশোনা পিছিয়ে যাচ্ছে। তাই বাধ্য হয়ে অবরোধ ডাকা হয়েছে।

অবরোধ চলাকালে বেলা আড়াইটার দিকে সেখানে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রক্টর আ স ম ফিরোজ উল হাসানসহ প্রক্টরিয়াল বডির সদস্যরা আন্দোরনরত শিক্ষার্থীদের সঙ্গে কথা বলেন।

এ সময় শিক্ষার্থীরা জানান, গত এক বছরে ৪৬তম ব্যাচের চতুর্থ বর্ষের সব কটি ক্লাস শেষ হয়েছে। তাঁরা চতুর্থ বর্ষের চূড়ান্ত পরীক্ষা দেওয়ার জন্য প্রস্তুত আছেন। বিভাগ থেকে চতুর্থ বর্ষের পরীক্ষা নেওয়ার জন্য তিন সদস্যের কমিটিও গঠন করা হয়েছে। তবে তৃতীয় বর্ষের ব্যবহারিক পরীক্ষা না হওয়ায় বিভাগ চতুর্থ বর্ষের পরীক্ষা নিতে পারছে না।

পরে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন ও বিভাগের শিক্ষকদের সঙ্গে কথা বলে এ সমস্যা সমাধানের আশ্বাস দেন ফিরোজ উল হাসান।

পরিবেশবিজ্ঞান বিভাগের সভাপতি এ এইচ এম সাদৎ প্রথম আলোকে বলেন, ‘আমাদের বিভাগের সবগুলো ব্যাচের তত্ত্বীয় পরীক্ষা আমরা নিচ্ছি। কিন্তু ব্যবহারিক পরীক্ষা নিতে হলে শিক্ষার্থীদের সরাসরি ল্যাবে আসতে হবে। কিন্তু বিশ্ববিদ্যালয়ের দুর্যোগকালীন পরীক্ষার যে অধ্যাদেশ, তাতে বিশ্ববিদ্যালয়ে সরাসরি পরীক্ষা নেওয়ার সুযোগ নেই। তারপরও আমরা প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সঙ্গে কথা বলে সমস্যা সমাধানের ব্যবস্থা করছি।’

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন