বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

দলীয় সূত্র জানায়, কেন্দুয়া ইউপিতে সাইফুল ইসলাম খান ও শেখ মাহবুবুর রহমান—দুজনই চেয়ারম্যান পদে দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশী ছিলেন। তবে শেষ পর্যন্ত শেখ মাহবুবুর রহমানকে দল মনোনয়ন দেয়। পরে সাইফুল ইসলাম খান বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে নির্বাচনে অংশ নেওয়ার ঘোষণা দেন। এতে দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগ এনে তাঁকে যুবলীগ থেকে সাময়িকভাবে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে।

তবে সাইফুল ইসলাম খান প্রথম আলোকে বলেন, ‘দল থেকে অব্যাহতি দেওয়ার মতো কোনো চিঠি আমি পাইনি। আমি দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গ করিনি। আমি তো বিদ্রোহী প্রার্থী নই। আমি জনগণের ভালোবাসা রক্ষার জন্যে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে নির্বাচনে অংশ নিয়েছি। আমি নৌকার বিরুদ্ধে যাইনি। আমি একজন অনুপ্রবেশকারীর বিরুদ্ধে নির্বাচনে অংশ নিয়েছি।’ ওই ইউনিয়নের সব জনগণ তাঁর পাশে আছে বলে তিনি দাবী করেন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে জেলা যুবলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মো. এরশাদ হোসেন প্রথম আলোকে বলেন, দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গ করে নৌকা প্রতীকের বিরুদ্ধে ইউপি নির্বাচনে অংশ নেওয়ার কারণে সাইফুল ইসলাম খানকে সদর উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদকের পদ থেকে সাময়িকভাবে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে। শিগগিরই তিনি অব্যাহতিপত্র পেয়ে যাবেন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন