বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, গতকাল সন্ধ্যার পর বিদ্রোহী প্রার্থী সাইফুল ইসলাম খানের সমর্থকেরা কেন্দুয়া কালীবাড়ি বাজারে একটি মিছিল বের করেন। ওই মিছিল শেষ হওয়ার পর নৌকার প্রার্থী শেখ মাহবুবুর রহমানের সমর্থকেরা আরেকটি একটি মিছিল বের করেন। নৌকার মিছিলটি কেন্দুয়া বাজারের মাংসহাটিতে পৌঁছালে উভয় পক্ষের মধ্যে ইটপাটকেল নিক্ষেপ শুরু হয়।

এ সময় উভয় পক্ষের কর্মী-সমর্থকেরা পাল্টাপাল্টি ধাওয়া ও সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েন। এতে দুই পক্ষের অন্তত ১৫ জন কর্মী-সমর্থক আহত হন। এদিকে দুই পক্ষের হামলার সময় কেন্দুয়া বাজারের আটটি দোকান ও নৌকার একটি নির্বাচনী কার্যালয়ে ভাঙচুর চালানো হয়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

নৌকার প্রার্থী শেখ মাহবুবুর রহমান মুঠোফোন প্রথম আলোকে বলেন, গতকাল সন্ধ্যার পর প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীর লোকজন মিছিল করেছেন। তখন তাঁর কর্মী-সমর্থকেরা কোনো রকমের সমস্যা করেননি। প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীর মিছিল শেষ হওয়ার পর তাঁর কর্মী-সমর্থকেরা মিছিল বের করেছেন। তাঁদের মিছিলের সময় প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীর লোকজন প্রথম হামলা চালান। তাঁরা বৃষ্টির মতো ইটপাটকেল নিক্ষেপ করেছেন। পরে উভয় পক্ষের মধ্যেই সংঘর্ষ হয়েছে।

তিনি দাবি করেন, হামলার একপর্যায়ে সাইফুল ইসলামের লোকজন বাজারের আটটি দোকান ভাঙচুর চালিয়ে লুট করে নিয়ে গেছেন। এ ঘটনায় তাঁর কয়েকজন কর্মী-সমর্থক আহত হয়েছেন। পরে থানায় লিখিত অভিযোগ দেওয়া হয়েছে।

জানতে চাইলে সাইফুল ইসলাম খান প্রথম আলোকে বলেন, ‘আমার মিছিলের আগে থেকেই নৌকার লোকজন অবস্থান নিচ্ছিল। ফলে, আমাদের মিছিলের আগের থেকে কেন্দুয়া বাজার এলাকায় পুলিশ অবস্থান নেয়। আমার মিছিলে কয়েকবার তারা হামলা চালানোর চেষ্টা করেছে। কিন্তু পুলিশ সেটা করতে দেয়নি।’

তিনি অভিযোগ করে বলেন, মিছিলের পর তাঁর সব কর্মী-সমর্থক নির্বাচনী কার্যালয়ে বসে ছিলেন। এ সময় লাঠি নিয়ে নৌকার একটি মিছিল তাঁর নির্বাচনী কেন্দ্রের সামনে এসে অবস্থান নেয়। সেখান থেকে নৌকার কর্মী-সমর্থকেরা নির্বাচনী কেন্দ্রের দিকে ইটপাটকেল নিক্ষেপ শুরু করেন। পুরো ঘটনা নৌকার সমর্থকেরাই ঘটিয়েছেন।

জামালপুর সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. রেজাউল ইসলাম প্রথম আলোকে বলেন, সংঘর্ষের খবর পাওয়ার পরপরই সেখানে অতিরিক্ত পুলিশ পাঠানো হয়। পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করেছে। এ ঘটনায় মো. শাওন নামের একজন বাদী হয়ে থানায় একটি মামলা করেছেন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন