বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

পানি উন্নয়ন বোর্ডের (পাউবো) পানি পরিমাপের নিয়ন্ত্রক আবদুল মান্নান বলেন, গত ২৪ ঘণ্টায় ২৫ সেন্টিমিটার পানি কমে বিপৎসীমার ৩৪ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। খুব ধীরগতিতে পানি কমছে। তবে বন্যা পরিস্থিতির কিছুটা উন্নতি হয়েছে। দুর্গত এলাকা থেকে পানি নেমে যেতে সময় লাগতে পারে।

খোঁজখবর নিয়ে জানা গেছে, গতকাল শনিবার থেকে বন্যার পানি কমতে শুরু করেছে। তবে দুর্গত এলাকার গ্রামে গ্রামে এখনো ঘরবাড়ি ও রাস্তাঘাটে পানি আছে। বেশির ভাগ ফসলি জমি তলিয়ে গেছে। এ কারণে গবাদিপশু নিয়ে চরম বিপাকে আছেন বানভাসি মানুষ। গোখাদ্য বিতরণের কথা বলছেন তাঁরা।

চিনাডুলী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবদুস সালাম প্রথম আলোকে বলেন, পানি কমছে, তবে এলাকার ঘরে ঘরে এখনো পানি রয়েছে। মানুষের কাজকর্ম নেই। ১০ দিন ধরে কর্মহীন পানিবন্দী মানুষ। তাঁদের মধ্যে ত্রাণসামগ্রী দেওয়া প্রয়োজন। খালি চাল নিয়ে বন্যাকবলিত মানুষের কাছে গেলে তাঁরা নিতে চান না। চালের সঙ্গে নিত্যপ্রয়োজনীয় আরও উপকরণ দেওয়ার দরকার।

জামালপুর জেলা ত্রাণ ও পুনর্বাসন কর্মকর্তা মো. নায়েব আলী প্রথম আলোকে বলেন, বন্যা পরিস্থিতি অনেকটাই উন্নতির দিকে। তবে দুর্গত এলাকায় পানি রয়েছে। দু-এক দিনের মধ্যে পানি নেমে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। দুর্গত মানুষের মধ্যে ত্রাণসামগ্রী বিতরণ অব্যাহত আছে। পর্যায়ক্রমে সবাই ত্রাণসামগ্রী পাবে। পর্যাপ্ত ত্রাণসামগ্রী মজুত রয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন