পানি উন্নয়ন বোর্ডের (পাউবো) পানি পরিমাপক (গেজ রিডার) আবদুল মান্নান প্রথম আলোকে বলেন, গত ২৪ ঘণ্টায় যমুনার পানি ১৬ সেন্টিমিটার বেড়ে বাহাদুরাবাদ পয়েন্টে বিপৎসীমার ৩০ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। এতে নতুন নতুন এলাকা প্লাবিত হচ্ছে। যেভাবে পানি বাড়ছে, এতে নতুন নতুন আরও এলাকা প্লাবিত হওয়ার শঙ্কা রয়েছে।
স্থানীয় প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, ইসলামপুর উপজেলার চিনাডুলী, সাপধরী, বেলগাছা, পাথর্শী, কুলকান্দি, নোয়ারপাড়া, দেওয়ানগঞ্জ উপজেলার চিজাকাজানী, চুকাইবাড়ী, বাহাদুরাবাদ ও পৌরসভার আংশিক, মাদারগঞ্জ উপজেলার চরপাকেরদহ, জোড়খালী, বালিজুড়ী ও মেলান্দহ উপজেলার ঘোষেরপাড়া, ঝাউগড়া ও আদ্রা ইউনিয়নের নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হচ্ছে।

চিনাডুলী ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান আবদুস সালাম প্রথম আলোকে বলেন, এই ইউনিয়ন নদীর একদম তীরবর্তী। ফলে বন্যার পানি ঢোকার সঙ্গে সঙ্গে পুরো ইউনিয়ন বন্যাকবলিত হয়ে পড়ে। অনেক মানুষ এখন পানিবন্দী হয়ে পড়েছেন। এসব এলাকায় এখনই খাদ্যসহায়তার প্রয়োজন। এসব মানুষ দিনে এনে দিনে খাওয়া অবস্থা। পানিবন্দী অবস্থায় তাঁদের কষ্ট অনেক বেশি।

জামালপুর জেলা ত্রাণ ও পুনর্বাসন কর্মকর্তা মো. নায়েব আলী প্রথম আলোকে বলেন, বন্যা মোকাবিলায় জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে দুর্যোগ প্রতিরোধ কমিটির সভা হয়েছে। ইতিমধ্যে সাতটি উপজেলায় বন্যাকবলিত ব্যক্তিদের সহায়তার জন্য ৩৫ মেট্রিক টন চাল বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। সেগুলো বিতরণ চলছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন