বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

জামালপুর জেলা যুবদলের সাবেক সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান মুঠোফোনে বলেন, শান্তিপূর্ণভাবে দলীয় কার্যালয়ে আলোচনা সভা চলছিল। সভা প্রায় শেষের দিকে ছিল। প্রথমে কার্যালয়ের সামনে একটি ককটেল বিস্ফোরণ ঘটনান ছাত্রলীগ ও যুবলীগের নেতা-কর্মীরা। এরপর তাঁদের ওপর হামলা চালিয়ে মারধর করেন। এতে কয়েকজন আহত হয়েছেন। অথচ পুলিশ যুবদলেরই কয়েকজনকে আটক করে নিয়ে গেছে।

জেলা যুবলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি এরশাদ হোসেন বলেন, যুবদলের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী থেকে নানা উসকানিমূলক বক্তব্য দেওয়া হচ্ছিল। এ সময় যুবলীগের কয়েকজন অনুষ্ঠানস্থলের দিকে এগিয়ে গেলে যুবদলের নেতারা হামলা করেন। যুবদলের নেতারাই ভাঙচুর করে যুবলীগের ওপর দায় চাপানোর চেষ্টা করছেন।

তবে জামালপুর সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রেজাউল করিম খান বলেছেন, যুবদলের নেতা-কর্মীরা একটি নাশকতার পরিকল্পনা করছিলেন। এ সময় সাত–আটজনকে আটক করা হয়েছে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন