বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

এদিকে হঠাৎ জেলা যুবলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদককে অব্যাহতি দেওয়ার বিষয়টি নিয়ে শহরে ব্যাপক আলোচনা চলছে। তাঁরা কী ধরনের দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গ করেছেন, সেই বিষয়ে কেউ কিছু জানাতে পারেনি। এ প্রসঙ্গে যুবলীগের বেশ কয়েক নেতার সঙ্গে যোগাযোগ করা হলেও কেউ সুনির্দিষ্ট কারণ বলতে পারেননি। এদিকে অব্যাহতি পাওয়া সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকেরও কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পাওয়া রাশেদুল ইসলাম মুঠোফোনে প্রথম আলোকে বলেন, সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদককে সাময়িক অব্যাহিত দেওয়ায় তিনি ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পেয়েছেন। তবে এ বিষয়ে তিনি আনুষ্ঠানিক কোনো চিঠি পায়নি। কেন্দ্রীয় নেতারা মুঠোফোনে তাঁকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন