মানববন্ধন কর্মসূচিতে সভাপতিত্ব করেন সম্মিলিত সামাজিক আন্দোলন কমিটি জামালপুর জেলা শাখার সভাপতি জাহাঙ্গীর সেলিম। বক্তব্য দেন, সচেতন নাগরিক কমিটি (সনাক) জামালপুর জেলা শাখার সভাপতি অজয় পাল, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জেএসডি) জামালপুর জেলা শাখার সভাপতি আমির উদ্দিন ও সম্মিলিত সামাজিক আন্দোলন কমিটি জামালপুর জেলা শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক মুন মাহমুদ প্রমুখ।

বক্তারা বলেন, ৬ জুলাই দুপুরে জামালপুর শহরের বসাকপাড়া এলাকার শিশুশিক্ষার্থী সমৃদ্ধি ধর বেপরোয়া গতির ইজিবাইকচাপায় নিহত হয়েছে। এভাবেই প্রতিটি সড়কে ইজিবাইক নিয়ন্ত্রণহীনভাবে চলাচল করছে। কিন্তু দুঃখের বিষয়, প্রশাসন এসব ইজিবাইককে নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টাটুকুও করে না। ইজিবাইক চলাচলে কঠোর বিধিনিষেধ, জনগুরুত্বপূর্ণ জায়গায় জেব্রা ক্রসিং ও গতিরোধক স্থাপন করতে হবে। জরুরি ভিত্তিতে শহরের ইজিবাইক চলাচলে নিয়ন্ত্রণে আনতে হবে। চালকদের শৃঙ্খলার মধ্যে আনতে হবে। তাঁদের প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে। ইজিবাইকের যন্ত্রণায় সড়কে বের হওয়া যায় না। দ্রুত সময়ের মধ্যে ইজিবাইককে নিয়ন্ত্রণের মধ্যে আনতে হবে। অন্যথায় সর্বস্তরের মানুষকে সঙ্গে নিয়ে বৃহত্তর আন্দোলনের কর্মসূচির ডাক দেওয়া হবে।

এ সম্পর্কে জামালপুর ট্রাফিক পুলিশের পরিদর্শক ফকির সাইফুদ্দিন আহমেদ প্রথম আলোকে বলেন, ইজিবাইক নিয়ন্ত্রণ করা অনেক কঠিন ব্যাপার। ইজিবাইক নিয়ন্ত্রণ করতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের হিমশিম খেতে হচ্ছে। তারপরও ইজিবাইকগুলোকে লাল ও সবুজ রঙে দুটি ভাগ করা হয়েছে। এক দিন লাল রঙের, আরেক দিন সবুজ রঙের ইজিবাইক চলাচল করবে। ঈদের কারণে এই নিয়ম শিথিল রয়েছে। তবে আগামীকাল থেকে ফের ওই নিয়মে চলবে।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন