বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

পুলিশ, আসামিপক্ষের আইনজীবী ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, কমলগঞ্জের রহিমপুর ইউনিয়নের বড়চেক এলাকায় জমিজমা নিয়ে বিরোধকে কেন্দ্র করে দুটি পক্ষের মধ্যে মামলা ছিল। গতকাল মঙ্গলবার দিবাগত রাতে একটি মামলার ৫ নম্বর আসামি বড়চেক গ্রামের মশাহিদ আলীকে গ্রেপ্তার করে কমলগঞ্জ থানা-পুলিশ। এই মামলার বাদী একই এলাকার হারুনুর রশীদ। এদিকে পুলিশ গ্রেপ্তার মশাহিদ আলীকে আজ আদালতে সোপর্দ করে। এরপর গ্রেপ্তার ব্যক্তির পক্ষে তাঁর আইনজীবী কমলগঞ্জ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে জামিন আবেদন করেন। আদালত আসামির জামিন মঞ্জুর করেন।

আসামির জামিনের পরপরই বাদীপক্ষের ৮ থেকে ১০ জন লোক আদালতের বাইরে অবস্থান করা আসামির আত্মীয়স্বজন এবং তাঁর পক্ষের লোকজনের ওপর দা, চাকু নিয়ে হামলা করেন।

আসামির জামিনের পরপরই বাদীপক্ষের ৮ থেকে ১০ জন লোক আদালতের বাইরে অবস্থান করা আসামির আত্মীয়স্বজন এবং তাঁর পক্ষের লোকজনের ওপর দা, চাকু নিয়ে হামলা করেন। তাঁরা তখন আদালত এলাকায় পৌর জনমিলন কেন্দ্রে প্রবেশমুখের দক্ষিণ পাশে অবস্থান করছিলেন। স্থানীয় লোকজনের কাছ থেকে খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে আহত ব্যক্তিদের উদ্ধার করে। হামলাকারীরা ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যান। ঘটনার সময় জামিন পাওয়া আসামি কোর্টহাজতেই ছিলেন। এই ঘটনার পর বাদীর সঙ্গে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।

আসামিপক্ষের আইনজীবী মো. সানোয়ার হোসেন প্রথম আলোকে বলেন, গতকাল রাতে আসামিকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। আজ আদালতে তাঁর জামিন আবেদন করলে বিজ্ঞ আদালত জামিন মঞ্জুর করেন। জামিনের কথা শোনার পরই বাদীপক্ষের লোকজন ক্ষিপ্ত হয়ে আসামির আত্মীয়স্বজনের ওপর হামলা করেছেন। এতে তিনজন আহত হয়েছেন। তাঁদের একজনকে সিলেট পাঠানো হয়েছে।

মৌলভীবাজার সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. ইয়াছিনুল হক ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে প্রথম আলোকে বলেন, কমলগঞ্জের একটি মামলার ঘটনায় একপক্ষ আরেক পক্ষের ওপর হামলা করেছে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে আহত ব্যক্তিদের হাসপাতালে পাঠিয়েছে। এ সময় হামলাকারীরা পালিয়ে যান। ঘটনাস্থল থেকে হামলাকারীদের একটি প্রাইভেট কার জব্দ করা হয়েছে। এই ঘটনায় এখনো মামলা হয়নি।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন