বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

দৌলতদিয়ার ৫ নম্বর ফেরিঘাট এলাকার শাকিল-সোহান মৎস্য আড়তের মালিক শাহজাহান শেখ বলেন, সকাল আটটার দিকে মুঠোফোনে জেলে রঞ্জিত হালদার বলেন, তাঁর জালে বড় একটি বাগাড় মাছ ধরা পড়েছে। মাছটি ফেরিঘাটে আনার পর ওজন দিয়ে দেখতে পান প্রায় ২৫ কেজি হয়েছে। বর্তমানে মাছটি ফেরিঘাটের পন্টুনের সঙ্গে রশি দিয়ে বেঁধে পানিতে ভাসিয়ে রাখা হয়েছে।

স্থানীয় মৎস্যজীবীরা জানান, মা ইলিশ সংরক্ষণ অভিযান শুরু হচ্ছে আজ মধ্যরাত থেকে। তাই শেষ মুহূর্তে নদীতে জেলেরা রাত-দিন মাছ শিকারে ব্যস্ত। স্থানীয় লোকজনের পাশাপাশি মানিকগঞ্জ ও পাবনা অঞ্চলের জেলেরাও মাছ ধরতে ধরতে এ এলাকায় এসে গেছেন।

ফেরিঘাট এলাকার মৎস্য ব্যবসায়ী চান্দু মোল্লা বলেন, দেশে দেড় বছর ধরে করোনার কারণে ব্যবসা-বাণিজ্য করে কেউ লাভবান হতে পারেনি। বর্তমানে পরিস্থিতি কিছুটা স্বাভাবিক হয়ে আসায় সবার কমবেশি রোজগার হচ্ছে। এর মধ্যে আজ রাত থেকে মা ইলিশ সংরক্ষণ অভিযান শুরু হচ্ছে। এখন ২২ দিন আবার কেউ নদীতে মাছ ধরতে পারবে না।

উপজেলার ভারপ্রাপ্ত মৎস্য কর্মকর্তা রেজাউল শরীফ বলেন, আজ রাত ১২টার পর থেকে নদীতে সব ধরনের মাছ ধরার নৌকা নামা নিষেধ। ইতিমধ্যে মা ইলিশ সংরক্ষণ অভিযান সফল করতে সচেতনতামূলক কর্মসূচি শুরু হয়েছে। প্রচার-প্রচারণার কাজ চলছে পুরোদমে। গত কয়েক দিন নদীতে বিভিন্ন অঞ্চলের জেলেরা বড় বড় মাছ শিকার করেছেন। অভিযান শেষে আবার বড় মাছ পাওয়া যাবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন