বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ক্লাবের সামনের রাস্তায় ব্যাটারিচালিত দুটি রিকশার মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে রিকশা উল্টে বিশ্ববিদ্যালয়ের সাংবাদিকতা ও গণমাধ্যম অধ্যয়ন বিভাগের শিক্ষার্থী পূজা মজুমদার গুরুতর আহত হন। তাঁর মাথার খুলিতে আঘাত লেগে রক্তপাতের ঘটনা ঘটে। তিনি সাভারের এনাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) চিকিৎসাধীন।

মঙ্গলবার দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ক্লাবের সামনের রাস্তায় ব্যাটারিচালিত দুটি রিকশার মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে এ ছাত্রী গুরুতর আহত হন।

শিক্ষক সমিতির সভাপতি লায়েক সাজ্জাদ এন্দেল্লাহ ও সাধারণ সম্পাদক মোতাহার হোসেনের স্বাক্ষর করা বিবৃতিতে বলা হয়, জাহাঙ্গীরনগরের মতো পরিবেশবান্ধব ও সবুজ ক্যাম্পাসে ব্যাটারিচালিত রিকশা অনুপযোগী। এই বাহন ব্যবহারের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হোক। পাশাপাশি বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে আহত ছাত্রীর চিকিৎসার ব্যয় বহন এবং দুর্ঘটনায় দায়ী ব্যক্তিদের শাস্তি নিশ্চিত করারও দাবি জানায় শিক্ষক সমিতি।

এদিকে দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ মিনারসংলগ্ন সড়কে মানববন্ধন করেন শিক্ষার্থীরা। মানববন্ধন চলাকালে ইতিহাস বিভাগের শিক্ষার্থী নুরুজ্জামান ছয় দফা দাবি তোলেন। দাবিগুলো হলো—ব্যাটারিচালিত রিকশা বন্ধ, আহত ছাত্রীর চিকিৎসার ব্যয় বহন, দায়ী রিকশাচালককে গ্রেপ্তার, মোটরবাইক ও ব্যক্তিগত গাড়ির গতিনিয়ন্ত্রণ, বহিরাগত ব্যক্তিদের গাড়ি প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা এবং রাস্তার প্রয়োজনীয় স্থানে গতিরোধক স্থাপন।

এ সময় সাংবাদিকতা ও গণমাধ্যম অধ্যয়ন বিভাগের শিক্ষার্থী তাওফিকুর রহমান বলেন, একটা বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীরা নিরাপদে চলাচল করতে পারে না, এটা খুবই হতাশাজনক। রিকশা, মোটরসাইকেল কিংবা ব্যক্তিগত গাড়ি কীভাবে বিশ্ববিদ্যালয়ের সড়কে চলবে, সেটার জন্য কর্তৃপক্ষের ব্যবস্থা নেওয়া উচিত। তা না হলে এ ধরনের দুর্ঘটনা ঘটতেই থাকবে, যা শিক্ষার্থীদের জীবনকে অনিশ্চয়তার দিকে ঠেলে দেবে।

সাংবাদিকতা ও গণমাধ্যম অধ্যয়ন বিভাগের শিক্ষার্থী জান্নাতুল ফেরদৌসের সঞ্চালনায় মানববন্ধনে বক্তব্য দেন একই বিভাগের ওয়াজিহা রহমান, বাংলা বিভাগের শিক্ষার্থী জহির ফয়সাল, মির্জা সোহাগ প্রমুখ।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন