বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

স্বতন্ত্র প্রার্থী নূর এ আলম (মোটরসাইকেল প্রতীক) ডিবির আলোচিত সাবেক সহকারী কমিশনার (এসি) মরহুম আকরাম হোসেনের ছেলে। আকরাম হোসেন ১৯৯৮ সালে গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের হেফাজতে নিহত বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী রুবেল হত্যা মামলার আসামি ছিলেন। নিম্ন আদালতে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডপ্রাপ্ত হলেও উচ্চ আদালতের রায়ে পরে খালাস পান তিনি। নূর এ আলমের দাদা ও চাচা এ ইউপির চেয়ারম্যান ছিলেন।

এর আগে নূর এ আলম সংবাদ সম্মেলন করে আওয়ামী লীগ প্রার্থী তোফাজ্জল হোসেনের বিরুদ্ধে হামলা ও নির্যাতনের অভিযোগ করেন। এর পরিপ্রেক্ষিতে তোফাজ্জল হোসেন পাল্টা সংবাদ সম্মেলন করলেন।

এর আগে গতকাল রোববার সংবাদ সম্মেলন করে নূর এ আলম অভিযোগ করেন, আওয়ামী লীগ প্রার্থী তোফাজ্জল হোসেনের লোকজন তাঁর কর্মী-সমর্থকদের ওপর হামলা ও নির্যাতন করছেন।

পাল্টা সংবাদ সম্মেলন করে আওয়ামী লীগের প্রার্থী তোফাজ্জল হোসেন অভিযোগ করেন, এলাকার চিহ্নিত সন্ত্রাসী ও সর্বহারা পার্টির নেতা ওমর ফারুক, খোকন, মুকুল ও খোকা নূর এ আলমের পক্ষে এলাকার মানুষদের ভয়ভীতি দেখাচ্ছেন। ১৩ ডিসেম্বর তাঁর ওপর ওই সন্ত্রাসীরা হামলা চালান। এ সন্ত্রাসী চক্রের কারণে তিনি এবং তাঁর পরিবারের সদস্যরা খুব শঙ্কায় আছেন। তাঁরা যেকোনো সময় হামলা করে তাঁদের হত্যা করতে পারেন। তিনি এ সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য প্রশাসনের প্রতি আহ্বান জানান।

বেলা ১১টায় তোফাজ্জল হোসেনের সমর্থকেরা নূর এ আলমের পক্ষের ‘সন্ত্রাসীদের’ গ্রেপ্তারের দাবিতে প্রেসক্লাবের সামনে মানববন্ধন ও সমাবেশ করেন। ঘণ্টাব্যাপী চলা এ মানববন্ধনে সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আমিরুল ইসলাম, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হজরত আলী, সদর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান নাজমুল হুদা, হুগড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি গোলাম হোসেন, সাধারণ সম্পাদক জাফর আহমেদ প্রমুখ বক্তব্য দেন।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন