বিজ্ঞাপন

গাজীপুর মেট্রোপলিটনের কোনাবাড়ী থানার ওসি আবু সিদ্দিক ফাঁসি কার্যকরের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেছেন, আইনি প্রক্রিয়া শেষে আসাদুজ্জামানের মরদেহ তাঁর পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হবে।

কারাগার সূত্রে জানা গেছে, নেত্রকোনা থানায় করা একটি মামলায় আদালত তাঁকে মৃত্যুদণ্ড দেন। তাঁর বিরুদ্ধে আরও একাধিক মামলা ছিল। নেত্রকোনা থানায় বিস্ফোরক দ্রব্য আইনে আরেকটি মামলায় তাঁর ২০ বছরের কারাদণ্ড হয়। এ ছাড়া বিস্ফোরক দ্রব্য আইনের দুটি মামলায় তাঁকে আরও মোট ৩০ বছরের কারাদণ্ড দেন আদালত।

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন