বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

আদালত ও মামলা সূত্রে জানা গেছে, আনোয়ার হোসেন আক্কেলপুর পৌর শহরের চৌধুরীপাড়া মহল্লার ব্যবসায়ী সামিমুল হুদা চৌধুরীর বাসায় কাজ করতেন। ২০১০ সালের ২৮ মার্চ দুপুরে সামিমুল হুদা চৌধুরীর ছোট ভাই আনোয়ার হোসেন তোতার ছেলে সাব্বির হোসেনকে (৪) অপহরণ করেন আনোয়ার। পরে সাব্বিরকে চেতনানাশক ওষুধ খাইয়ে মুখে স্কচটেপ লাগিয়ে আনোয়ার তাঁর নিজ ঘরের চৌকির নিচে লুকিয়ে রাখেন। ওই দিন রাতে আনোয়ারের ঘরের চৌকির নিচ থেকে অচেতন অবস্থায় সাব্বিরকে উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় সামিমুল হুদা চৌধুরী বাদী হয়ে থানায় মামলা করলে পুলিশ আনোয়ারকে গ্রেপ্তার করে।

পরে আনোয়ার আদালত থেকে জামিনে ছাড়া পান। আজ বুধবার রায়ের দিন ধার্য ছিল। শুনানি শেষে বিচারক রুস্তম আলী রায় ঘোষণা করেন। এ সময় দণ্ডপ্রাপ্ত আসামি আনোয়ার হোসেন আদালতে উপস্থিত ছিলেন।

নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের সরকারি বিশেষ কৌঁসুলি ফিরোজা চৌধুরী প্রথম আলোকে বলেন, শিশু অপহরণ মামলায় আনোয়ার হোসেনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড ও তিন লাখ টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরও তিন বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। এ রায়ে রাষ্ট্রপক্ষ খুশি।

আসামিপক্ষের আইনজীবী উজ্জল হোসেন বলেন, ‘সন্দেহাতীতভাবে এ মামলায় রাষ্ট্রপক্ষ প্রমাণে ব্যর্থ হওয়া সত্ত্বেও আসামির সাজা হয়েছে। এ রায়ে আমরা ক্ষুব্ধ হয়েছি। আমরা উচ্চ আদালতে আপিল করব।’

জেলা থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন